কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৩ মামলার জলদস্যু দিদার নিহত

k3-didar-rab.jpg

এম নজরুল ইসলাম,কুতুবদিয়া(২০ নভেম্বর) :: কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে উপকূলের ত্রাসখ্যাত জলদস্যু সরদার দিদার নিহত হয়েছে।ঘটনাস্থল থেকে ৭টি দেশীয় তৈরী অস্ত্র ও ২০ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও ৯টি কাতুর্জের খোসা উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

সূত্রে জানা যায়, ২০ নভেম্বর (মঙ্গলবার) রাতে কুতুবদিয়া দ্বীপের বড়ঘোপ ইউনিয়নের অমজাখালী গ্রামে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে একদল জলদস্যুকে র‌্যাব ধাওয়া করলে জলদস্যুদের সাথে র‌্যাবের বন্দুকযুদ্ধ চলে। দীর্ঘ সময় বন্দুকযুদ্ধ চলার পর ডাকাত দল পালিয়ে গেলে ভোর রাতে ঘটনাস্থলে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে র‌্যাব।

পরে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ জয়নুল আবেদীন মৃত বলে ঘোষণা করেন। সংঘর্ষ চলাকালে র‌্যাবের দুই সদস্য যথাক্রমে হাবিলদার লিয়াকত আলী ও সিপাহী শহিদুল ইসলাম আহত হয়। তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান কর্তব্যরত চিকিৎসক।

প্রথমে লাশের পরিচয় পাওয়া না গেলেও পরে স্থানীয় চকিদারের মাধ্যমে লাশটি কুতুবদিয়া উপজেলার লেমশীখালী ইউনিয়নের করলা পাড়ার মৃত ইউসুফ নবীর ছেলে কুখ্যাত জলদস্যু দিদার (৩৫) প্রকাশ মৌলভীর বলে সন্তাক্ত করা হয়।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-৭ এর কক্সবাজার সিও অফিসের সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার টিটু কাজি বাদি হয়ে কুতুবদিয়া থানায় মামলা রুজু করে বলে কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস এ প্রতিনিধিকে নিশ্চিত করেন। দিদার স্ব-রাস্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী এবং তার বিরুদ্ধে কুতুবদিয়া থানায় ডাকাতি,অস্ত্র,অপহরণ মামলাসহ ১৩টি রয়েছে বলে জানান তিনি।

এ দিকে জলদস্যু দিদার নিহত হওয়ার খবরে এলাকায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ছেড়েছে সাধারণ জনগন। এলাকাবাসীর বিশ্বাস এবার এই বাহিনীর বাকীরা নিশ্চয় ডাকাতি ছেড়ে দিবে নয়ত তারাও এভাবে মারা পড়বে।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri