উখিয়ায় মাসিক সমন্বয় সভায় রোহিঙ্গাদের নিয়ন্ত্রণ করার দাবি

ukhiya-27.jpg
মোসলেহ উদ্দিন,উখিয়া(২৭ নভম্বের) :: কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মাসিক সমন্বয় সভায় বক্তারা বলেন, উখিয়ার সার্বিক পরিবেশ বর্তমানে স্বাভাবিক ও শান্ত রয়েছে।
তবে রোহিঙ্গাদের কারণে এখানকার পরিস্থিতি পরিবেশ দিন দিন অবনতি হচ্ছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গা চিহ্নিত করনের জন্য সড়কে অস্থায়ী ভাবে বসানো পুলিশ চেকপোষ্টে রোহিঙ্গা তল্লাসীর নামে যাত্রীদের হয়রানি করা হচ্ছে। নিউ ফরেস্ট চেকপোষ্টে যাত্রীদের গাড়ি থেকে নামিয়ে ঘন্টারপর ঘন্টা দাড় করিয়ে অযথা হয়রানী করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
মঙ্গলবার সকাল ১০ টার দিকে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা আরো বলেন, প্রত্যাবাসনের আওতায় রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরে যেতে হবে এমন আশংকা করে প্রতিদিন শত শত রোহিঙ্গা বিভিন্ন গ্রামীণ সড়ক পথে ক্যাম্প ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে। অথচ সড়ক পথে স্থানীয় যাত্রীদের বেলায় আইডি কার্ড তল্লাসীর নামে সময় কালক্ষেপন করে হয়রানি করা হচ্ছে। রোহিঙ্গারা ঠিকই দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে চলে যাচ্ছে।
সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক হামিদুল হক চৌধুরী এসব অভিযোগ তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে রোহিঙ্গাদের এখন থেকে আয়ত্বে আনা না হলে ভবিষ্যতে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হবে। যেহেতু রোহিঙ্গারা রাতের বেলায় বেপরোয়া হয়ে বিভিন্ন অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে। এমনকি গ্রামগঞ্জে চুরি, ডাকাতিসহ ইয়াবার আদানপ্রদান আশংকা জনক ভাবে বেড়ে গেছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান ছেনুয়ারা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমন্বয় সভায় বক্তারা আরো বলেন, রোহিঙ্গা অনুপাতে ক্যাম্পে আইন শৃঙ্খলা পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে যেসমস্ত আইন শৃঙ্খলা নিয়োজিত রাখা হয়েছে তা অত্যান্ত অপ্রতুল। যে কারণে দিনের বেলায় রোহিঙ্গারা অবাধ বিচরণ করলেও তাদের তেমন কোন অসদাচরণ চোখে পড়ার মতো নয়। তবে রাত নামলেই এসব রোহিঙ্গারা তাদের আচরণ পাল্টিয়ে দেয়। বর্তমানে বিশেষ অভিযান চললেও রোহিঙ্গাদের অবাধ চলাফেরা থামেনি।
উপরোন্তু পথে ঘাটে, নির্জন স্থানে, বসতবাড়িতে ডাকাতির মতো ঘটনা ঘটছে। তাই এসব রোহিঙ্গাদের আগে ভাগেই নিয়ন্ত্রণে আনা না হলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে বক্তারা দাবী করেন।
সমন্বয় সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নিকারুজ্জামান চৌধুরী, রতœাপালং ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল আলম চৌধুরী, হলদিয়াপালং ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম, জালিয়াপালং ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের লোকজন বক্তব্য রাখেন।

Share this post

PinIt
scroll to top