টেকনাফের হ্নীলায় রোহিঙ্গা দূর্বৃত্তদের হামলায় স্থানীয় নারী চুরিকাঘাত

caku-Killing.jpg

হুমায়ূন রশিদ,টেকনাফ(৮ ডিসেম্বর) :: টেকনাফের হ্নীলায় রোহিঙ্গা দূবৃর্ত্তদের হামলায় স্থানীয় এক নারী চুরিকাঘাত হয়েছে। এই ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে ক্যাম্প ইনচার্জ বরাবর আবেদন করছেন এই অসহায়-দরিদ্র পরিবারটি।

জানা যায়, গত ৭ডিসেম্বর রাত ১০টারদিকে উপজেলার হ্নীলা পশ্চিম লেদার লবণ মাঠের শ্রমিক নুর নবীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগমের বাড়িতে গিয়ে একা থাকার সুযোগে পাশ^বর্তী নয়াপাড়ার এইচ ব্লকের আব্দুল্লাহ প্রকাশ কামাল ডাকাতের পুত্র নুরু সালাম, মৃত শহর আলীর পুত্র ইলিয়াছ, নাফাইঙ্গার পুত্র রুহুল আমিন, ইউছুপের পুত্র জুবাইর ও মৃত তজল আহমদের পুত্র রহমত উল্লাহ মিলে বাড়িতে গিয়ে অনৈতিক প্রস্তাব দিলে রাজি না হওয়ায় তার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

সে সম্ভ্রম রক্ষার্থে চিৎকার করলে আনোয়ারাকে চুরিকাঘাত করে। তাকে উদ্ধার করে নয়াপাড়া ক্যাম্প হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হলে চুরিকাঘাত স্থানে ১০টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।

সকালে ১নং বিবাদীর মা এসে টাকার বিনিময়ে বিষয়টি ধামা-চাপা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়ে সংঘবদ্ধ হয়ে গ্রামীবাসীর উপর হামলার চেষ্টা করতে উদ্যত হলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে।

এই ব্যাপারে ন্যাক্কারজনক ঘটনার প্রতিকার চেয়ে ক্যাম্প ইনচার্জসহ ক্যাম্প সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারী সংস্থা বরাবর আবেদনের প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য,উপরোক্ত রোহিঙ্গাসহ অনেক বখাটে স্থানীয় গ্রামীণ যুবতী,চাকরীজীবি মহিলাদের ইভটিজিং, চুরি-ছিনতাই, ডাকাতি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে স্থানীয় অধিবাসীরা অসহায় হয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের রোহিঙ্গা অপরাধীদের হাত থেকে নিরাপদ রাখতে সংশ্লিষ্টদের সুনজর প্রয়োজন।

Share this post

PinIt
scroll to top