রামুতে কমলের নির্বাচনি প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত

kml-10-1.jpg
কামাল শিশিরর,রামু (১০ ডিসেম্বর) :: কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি বলেছেন, বিএনপি নেতা কাজল এমপি থাকাকালে কক্সবাজার-রামুবাসীর উন্নয়নের কথা বলেননি। ৫ বছরে বরাদ্ধ পাওয়া অর্থ এখানকার উন্নয়নের ব্যয় করেননি। তিনি সময় ব্যয় করেন ব্যবসায়িক কাজে। এমপি থাকাকালে বরাদ্ধকৃত অর্থ দিয়ে রামুর ঈদগড়ে নিজের মৎস্য খামারে যাওয়ার পথে ব্রীজ এবং খুনিয়াপালংয়ের গোয়ালিয়ায় নিজের হ্যাচারীতে যাওয়ার সড়ক পাকাকরণ করেছেন।
তিনি ভয়াবহ বন্যায়ও মানুষের পাশে ছিলেন না। কোথাও একটি মক্তব  তিনি প্রতিষ্ঠা করেননি। মানুষের উন্নয়নের চেয়ে তিনি নিজের উন্নয়নের জন্যই কাজ করেন। তাই কক্সবাজার-রামুবাসীর ভোট চাওয়ার অধিকারও তার নেই। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি’কে নির্বাচিত করার লক্ষ্যে রামুতে বিশাল প্রতিনিধি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এসব কথা বলেন।
সোমবার (১০ ডিসেম্বর) বিকালে রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সমাবেশে এমপি কমল আরো বলেন, আওয়ামীলীগ আবার ক্ষমতায় না আসলে কক্সবাজার আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দর, রেল লাইন, বাঁকখালী নদীর বেড়িবাঁধ, সড়ক-সেতুর নির্মাণ সহ অনেক উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই চলমান উন্নয়নের পাশাপাশি কক্সবাজার-রামুকে এগিয়ে নিতে হলে জননেত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।
আগামী ৩০ ডিসেম্বর নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। এজন্য আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের প্রতিটি নেতাকর্মীকে নিরলসভাবে কাজ করে যেতে হবে। তিনি বলেন, ব্যাপক উন্নয়নের ফলে সারাদেশে আওয়ামীলীগের জনপ্রিয়তা এখন বেড়েছে। তাই আগামী নির্বাচনে ২৩০টিরও বেশী আসনে আওয়ামীলীগ জয়লাভ করে ক্ষমতায় আসবে। শেখ হাসিনার বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।
কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জাফর আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলম, কক্সবাজার জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এডভোকেট নুরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মুসরাত জাহান মুন্নী, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট ফরিদুল আলম, রামু উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলী হোসেন, কক্সবাজার জেলা পরিষদ সদস্য শামসুল আলম চেয়ারম্যান ও নুরুল হক কোম্পানী,
বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাঙ্গালী, মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমদ মাস্টার, ফতেখাঁরকুল ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, খুনিয়াপালং ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক আবদুল মাবুদ, গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুচ ভূট্টো, জোয়ারিয়ানালা ইউপি চেয়ারম্যান কামাল শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, ঈদগড় ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ ভূট্টো, কচ্ছপিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসমাইল মো. নোমান, কাউয়ারখোপ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, রাজারকুল ইউপি চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, রশিদনগর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি শাহ আলম, কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আমিন কোম্পানী, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো,
খুনিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আবদুল গনি চেয়ারম্যান, রামু উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল হক চেয়ারম্যান, কাউয়ারখোপ হাকিম রকিমা উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কিশোর বড়ুয়া, বিশ্বের দীর্ঘমানব আওয়ামীলীগ নেতা জিন্নাত আলী, কক্সবাজার জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সাধারণ সম্পাদক নুরাল হেলাল, রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি এডভোকেট মোজাফ্ফর আহমদ হেলালী, সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়ুয়া, সহ সভাপতি ওসমান সরওয়ার মামুন ও আবছার কামাল সিকদার,  ঈদগড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক  হাজী নুরুল আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক  কামাল শিশির,তরুন বড়ুয়া, নুরুল হক, সৈয়দ মো. আবদু শুক্কুর,
খুনিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ সিকদার, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি জহুর আলম, সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনি, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, যুবলীগ নেতা মাসুদুর রহমান, নবীউল হক আকান ও ওসমান গনি, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নুরুল কবির হেলাল, মোহাম্মদ হোছেন সোহেল,জেলা তাঁতীলীগের সহ সভাপতি আনছারুল হক ভূট্টো, সাংসদ কমলের একান্ত সচিব ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মিজানুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সম্পাদক, সাংসদ কমলের একান্ত সচিব আবু বক্কর ছিদ্দিক, ঈদগড় ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মনিরুল ইসলাম,  প্রচার সম্পাদক ইব্রাহীম খলিল,কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন সোহেল সিকদার, রশিদনগর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক মিজানুল করিম, খুনিয়াপালং ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ বিদ্যুৎ মেম্বার,
জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আনছারুল আলম, রাজারকুল আওয়ামীলীগ নেতা অপূর্ব পাল, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ফরিদ বক্ত বাবুল ও হাবিবুর রহমান, উপজেলা তাঁতীলীগ সভাপতি নুরুল আলম জিকু, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, উপজেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি শফিউল আলম কাজল, সাধারণ সম্পাদক সাহাব উদ্দিন, বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হক বাবু, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আজিজুল হক, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন, মোহাম্মদ নোমান, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি একরামুল হাসান ইয়াছিন প্রমূখ। অনুষ্ঠানে রশিদনগর ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার ও ২ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মনজুর আলম সাংসদ কমলকে ফুলের তোড়া দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন। সমাবেশে রামু উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, শ্রমিকলীগ, সৈনিকলীগ, তাঁতীলীগ, বঙ্গবন্ধু ছাত্রপরিষদসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের জনতা সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri