মরিনহোর ছাঁটাইয়ে খুশীতে পগবার বাঁকা হাসি

pogba-morinho-coxbangla.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৯ ডিসেম্বর) :: চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই পল পগবা ও কোচ হোসে মরিনহোর দ্বন্দ্বটাই ছিল ফুটবল মহলের অন্যতম প্রধান আলোচিত বিষয়। এ দুই তারকার দ্বন্দ্ব এতোটাই চরমে পৌঁছায় যে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেও পগবাকে রিজার্ভ বেঞ্চে বসিয়ে রাখেন মরিনহো। তবে এ পর্তুগিজ কোচের ছাঁটাইয়ের মধ্যে দিয়ে আপাতত শেষ হয়েছে এ দ্বন্দ্ব।

শুরু থেকেই নানা গুঞ্জন থাকলেও মঙ্গলবারই মরিনহোকে ছাঁটাই করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। আর তার বরখাস্তে নিঃসন্দেহে খুশী হয়েছেন পগবা। আর খুশী যে কতটা হয়েছেন, ইনস্টাগ্রাম পোস্ট দিয়ে সে প্রমাণ দিয়েছেন। বাঁকা হাসি হেসে একটি ছবি আপলোড করেন। আর সেখানে ক্যাপশন দেন, ‘এটার ক্যাপশন দিন।’

তবে ক্লাব সমর্থকরা বিষয়টি খুব ভালোভাবে নেননি। অনেকেই উল্টো তোপ দাগিয়েছেন পগবাকে। অনেকেই ক্লাবের বর্তমান অবস্থার জন্য দায় দিয়েছেন এ ফরাসীকে। গালিগালাজ করতেও ছাড়েননি অনেকে। তাই বাধ্য হয়েই ১০ মিনিট পর সে পোস্ট মুছে দেন। যদিও এই ১০ মিনিটেই ৬৪ হাজার লাইকও পেয়েছিলেন তিনি।

রাশিয়া বিশ্বকাপে দারুণ খেলে দলের শিরোপা জয়ে মুখ্য ভূমিকা রাখলেও ম্যানইউতে আশানুরূপ খেলতে পারছেন না পগবা। তাই মাঝে মধ্যেই রিজার্ভ বেঞ্চে বসেই সময় কাটাতে হয়েছে তাকে। আর এ কারণে মরিনহোর উপর আরও বেশি খেপেছেন এ ফরাসী। ক্লাব ছাড়ার হুমকিও দিয়ে আসছিলেন।

তবে শেষ পর্যন্ত তাকে বসিয়ে রাখার মাসুলটাই গুনতে হয়েছে মরিনহোকে। রোববার লিভারপুলের মাঠে ১-৩ গোলে বিধ্বস্ত হয় রেড ডেভিলরা। সে ম্যাচে তাকে খেলাননি কোচ। তাকে বসিয়ে রেখে হারটা মেনে নিতে পারেনি ম্যানইউ কর্তৃপক্ষ। সবমিলিয়ে তোপের মুখে পড়েন মরিনহো। ফলে চাকুরীটা ছাড়তেই হয় তাকে।

২০১৬ সালে জুভেন্টাস থেকে ৮৯ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে ম্যানইউতে নাম লিখিয়েছিলেন পগবা। চলতি মৌসুমে আবার তার জুভেন্টাসে ফেরা নিয়ে জোর গুঞ্জন চলছে। তবে মরিনহোর ছাঁটাইয়ে আপাতত ক্লাব ছাড়ার কথা বাদ দিতে পারেন পগবা।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri