জোটে লড়েই ‘প্রধান বিরোধী’ দলের মর্যাদায় এরশাদ

ershad.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৫ জানুয়ারী) :: বাংলাদেশে জাতীয় সংসদে ফের বিরোধী দলের মর্যাদা নিজেদের দখলে রাখল জাতীয় পার্টি (জাপা)৷ প্রত্যাশা মতোই এদিন দলের তরফে জানানো হয়, তারাই একাদশ সংসদে বিরোধী আসনে বসবে৷ আগেই ধারণা করা হয়েছিল জাপা ‘সরকারি জোটের বিরোধী’ হতে চলেছে৷

তবে দলের প্রধান নেতা তথা প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও একদা সামরিক শাসক হুসেইন মহম্মদ এরশাদ জানিয়েছেন, মন্ত্রীপরিষদে থাকছেন না কোনও জাপা সাংসদ৷

আগেই বিভিন্ন সূত্র থেকে খবর নিয়ে, গতি প্রকৃতি বিশ্লেষণ করে বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল কে হতে পারে তার একটা স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছিল সেই খবরে বলা হয়েছিল, জাতীয় পার্টি বসতে চলছে বিরোধী আসনেই৷

গত দশম জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি ভোট বয়কট করে৷ সেই ধাক্কায় জাতীয় পার্টি হয়ে যায় বিরোধী দল৷ জাতীয় সংসদে বিরোধী নেতা হন এরশাদ পত্নী রওশন৷ পরে এরশাদকে বিশেষ দূত করা হয়৷ আর সরকারের মন্ত্রী হন কয়েকজন জাপা সংসদ সদস্য৷ এর জেরে চরম বিতর্কে জড়ায় এই দল৷ বলা হয়- এরশাদের দল সরকারেও রয়েছে আবার বিরোধীও৷

সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় নির্বাচনেও সরকারি জোট তথা আওয়ামী লীগের সঙ্গেই হাত মিলিয়ে ভোট লড়ে জাতীয় পার্টি৷ তারাই এবার বিরোধী আসনে বসতে চলল৷ একাদশ জাতীয় সংসদে জাতীয় পার্টি প্রধান বিরোধী দল হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। একইসঙ্গে মন্ত্রিসভায় জাতীয় পার্টির কোনও সদস্য থাকবেন না।

শুক্রবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে দলের তরফে জানানো হয়েছে, পদাধিকার বলে জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের সভাপতি হবেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এবং উপনেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। জাতীয় পার্টির কোনও সংসদ সদস্য মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত হবেন না। স্পিকারকে এই ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন এরশাদ।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri