বিভেদ ভুলে মুসলমানদের এককাতারে আসতে হবে : সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী

212234145998699325_n.jpg

বার্তা পরিবেশক(২৩ জানুয়ারী) :: দূর দূরান্ত থেকে আসা লাখো ভক্ত জনতার অংশগ্রহণে গাউছুল আ’যম হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্ মাইজভাণ্ডারীর (ক.) ১১৩তম বার্ষিক ওরশ শরিফ মাইজভাণ্ডার দরবার শরিফে অনুষ্ঠিত হয়।

২৩ জানুয়ারি (১০ মাঘ) বুধবার মাইজভাণ্ডার শরিফে রহমানিয়া মইনীয়া মন্জিলের উদ্যোগে ওরশ শরিফ উপলক্ষে আয়োজিত মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি ও মাইজভাণ্ডার দরবার শরিফের সাজ্জাদানশীন রাহবারে শরিয়ত ও ত্বরীকত হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)।

তিনি বলেন, সারা বিশ্বে আজ নিরীহ মানবতার আর্তনাদ চলছে। দুর্বলের উপর সবলের অত্যাচার নির্যাতনের ফলে বিশ্ববাসী আজ শংকিত ও উদ্বিগ্ন। কাঙ্খিত উন্নয়ন, জনজীবনে গতি, স্বস্তি, সমৃদ্ধি আনতে সুশাসন ও ন্যায় বিচারের বিকল্প নেই। মানুষ তাঁর অধিকার থেকে বঞ্চিত হোক তা আমরা চাই না। সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী বলেন, আল্লাহ পাকের ওলীদের জীবন দর্শনই হচ্ছে জনসেবা, জনকল্যাণ সুবিচার নিশ্চিত করা।

পৃথিবীটা বাসযোগ্য হোক এটাই তাঁরা চান। মাইজভাণ্ডারী ত্বরীকার স্থপতি হযরত গাউছুল আ’যম শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্ মাইজভাণ্ডারী (ক.) ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় যশোরে বিচারকের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করে একটি মানবিক উদার সহনশীল বিশ্ব গড়ার পথ নির্দেশনাই দিয়ে গেছেন।

তিনি বলেন, দেশে দেশে আজ মুসলমানরা নির্যাতিত ও নিগৃহিত। নিরীহ নিরপরাধ মুসলমানদের আর্তনাদে আজ আকাশ বাতাস ভারী হচ্ছে।

মুসলমানদের এই বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে পরিত্রাণে মুসলিম বিশ্বের ঐক্যের বিকল্প নেই। তাই মাজহাব মিল্লাতের স্বার্থে মুসলমানদের ছোট খাটো বিভেদ ভুলে সবাইকে এককাতারে আসতে হবে। এই পথেই রয়েছে শান্তি ও মুক্তি। হিংসা বিদ্বেষ লোভ মোহের ঊর্ধ্বে ওঠে আউলিয়ায়ে কেরামের আদর্শ অনুসরণে শান্তিময় জীবন গঠনের তাগিদ দেন তিনি।

ওরশ মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন, শাহজাদায়ে গাউছুল আ’যম হযরত সৈয়দ মেহবুব-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী (মা.জি.আ.), শাহজাদায়ে গাউছুল আ’যম হযরত সৈয়দ হাসনাইন-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী (ম.জি.আ.), হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী ট্রাস্টের মহাসচিব খলিফা এডভোকেট কাজী মহসীন চৌধুরী।

গাউছুল আ’যম মাইজভাণ্ডারীর (ক.) জীবন কর্ম দর্শনের ওপর আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, আন্জুমান কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কবির চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: আলমগীর খান মাইজভাণ্ডারী, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের চট্টগ্রাম উত্তর জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঈনুল আলম চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক এইচ এম মনজুরুল আনোয়ার চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর আলম, উত্তর জেলা সদস্য ইদ্রিস হায়দার, সেকান্দর আলম চৌধুরী, মাওলানা মো: ফরিদুল আলম, ফটিকছড়ি পৌরসভার সভাপতি এহসানুল করিম, যুব সেনা নেতা এম এস চৌধুরী ফিরোজ, মইনীয়া ওলামা মাশায়েখ ফোরাম চট্টগ্রাম জেলা আহ্বায়ক আমতল ছিদ্দিক্বীয়া মইনীয়া মাদ্রাসার সুপার মাওলানা বাকের আনসারী, সদস্য সচিব মাওলানা ইসমাইল সিরাজী, চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি খলিফা আলহাজ্ব বোরহান উদ্দিন, উত্তর জেলা আহ্বায়ক খলিফা আব্দুল হামিদ, দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী মো: শহিদুল্লাহ্, হাফেজ মাওলানা মাকসুদুর রহমান প্রমুখ।

সালাত-ছালাম শেষে দেশ-বিশ্ববাসীর শান্তি-সমৃদ্ধি এবং বিশ্বের মজলুম মানবতার পরিত্রাণ কামনায় আখেরি মুনাজাত পরিচালনা করেন হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (মা.জি.আ.)। পরে তবরুক পরিবেশিত হয়।

Share this post

PinIt
scroll to top