izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

পেকুয়ায় শেখ রাসেল ছাত্রাবাস ও ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে কলেজ প্রতিষ্টা হবে

20190123_185548.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(২৩ জানুয়ারী) :: পেকুয়ায় সংবর্ধনা অনুষ্টানে চকরিয়া-পেকুয়ার সংসদ সদস্য জাফর আলম বিএ(অনার্স) এমএ বলেছেন, পেকুয়ায় বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কলেজ প্রতিষ্টা করা হবে। শিক্ষা হচ্ছে দেশ ও জাতিগঠনের অন্যতম উপাদান। শিক্ষার বিকাশ সাধিত হচ্ছে এ সরকারের সময়। পেকুয়ায় ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে একটি কলেজ প্রতিষ্টা করা হবে।

২০২০ সালের মধ্যে একটি পূর্নাঙ্গ কলেজ স্থাপনের প্রক্রিয়া গ্রহন করেছি। টইটং ও বারবাকিয়া ইউনিয়নের মধ্যবর্তী স্থানে এ কলেজ প্রতিষ্টা করা হবে। এখান থেকে প্রান্তিক জনগোষ্টীর ছেলে-মেয়েরা পড়ালেখা করে উচ্চ শিক্ষা লাভ ও জ্ঞান আরোহন করার সুযোগ পাবেন।

সাংসদ জানান, টইটং উচ্চ বিদ্যালয়কে আধুনিকায়ন করা হবে। উপজেলার সীমান্তবর্তী এ ইউনিয়নকে উন্নয়নে রপান্তরিত করা হবে। স্কুলের একাডেমিক সমস্যা নিরসন করা হবে।

বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ট ছেলে শেখ রাসেলের নামে এ বিদ্যালয়ের জন্য নতুন ছাত্রাবাস প্রতিষ্টা করা হবে। সাংসদ এ ছাত্রাবাসের নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করতে প্রথম ধাপে ৫ লক্ষ টাকার বরাদ্দ ঘোষনা দেয়। টইটং সীমান্তে উন্নতমানের দৃষ্টিনন্দন সীমান্ত গেইট নির্মাণ করার ঘোষনা দিয়েছেন।

পর্যটন নগরী কক্সবাজারের দৃষ্টিনন্দন ও মনোমুগ্ধকর স্থাপত্য শৈলী এ গেইটে শোভা পাবে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন সাংসদ জাফর আলম।

২৩ জানুয়ারী (বুধবার) বিকেলে উপজেলার টইটং ইউনিয়নে সংবর্ধনা অনুষ্টান হয়েছে।

চকরিয়া-পেকুয়ার সাংসদ জাফর আলম বিএ(অনার্স)এমকে সংবর্ধিত করতে ওই দিন টইটং ইউনিয়ন আ’লীগ, টইটং ইউনিয়ন পরিষদ ও টইটং উচ্চ বিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যেগ নেয়। বিকেলে টইটং উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সংবর্ধনা সমাবেশ অনুষ্টিত হয়।

ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি ছরওয়ার কামাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীর চেয়ারম্যানের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন কক্সবাজার জেলা আ’লীগ সদস্য এস,এম গিয়াস উদ্দিন, জিএম কাসেম, উম্মে কুলসুম মিনু, উপজেলা আ’লীগ সম্পাদক আবুল কাসেম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব উল করিম, পেকুয়া থানার ওসি জাকির হোসেন ভূইয়া, সহসভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, শিলখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান ওয়ারেচী, সদর ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি আজম খান, উজানটিয়ার চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরী, যুবলীগ সম্পাদক মো: বারেক, ছাত্রলীগ সভাপতি কফিল উদ্দিন বাহাদুর, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা শওকত ওসমান দুলাল।

অন্যান্যদের উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম আজাদ, রাজাখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছৈয়দ নুর, টইটং ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান হাজী শাহাব উদ্দিন, টইটং উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাশেদুল ইসলাম প্রমুখ। সমাবেশের শেষ পর্যায়ে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের প্যনেল চেয়ারম্যান মাহাবুল আলম, মো: ইসমাইল এমইউপি, সাবেক মেম্বার মমতাজুল ইসলাম বিএনপি থেকে আ’লীগে যোগদান করেন।

এ দিকে সংবর্ধনা সভাকে ঘিরে টইটং উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীদের উদ্যোগে বিদ্যালয় মাঠে নানান রংয়ে সাজানো হয়েছে। টইটং ইউনিয়ন আ’লীগ ও অঙ্গ সংগঠন ও ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে এবিসি সড়কে অর্ধশতাধিক তোরণ নির্মান করা হয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top