পেকুয়ায় হামলায় এস,এস,সি পরীক্ষার্থী ও অন্ত:স্বত্তা সহ আহত-৭

hamla-injured-coxbangla-1.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(৪ ফেব্রুয়ারী) :: পেকুয়ায় দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক মারপিট হয়েছে। এ সময় হামলায় এস,এস, সি পরীক্ষার্থী ও অন্ত:স্বত্তা মহিলাসহ অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

৪ ফেব্রুয়ারী (সোমবার) বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের মৌলভীপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন-ওই এলাকার মৃত আবদু সালামের ছেলে ৭ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সহ-সভাপতি আনসার উল্লাহ (৫৫), তার মেয়ে রাজাখালী ইয়ার আলী খান উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও চলতি এস,এস,সি পরীক্ষার্থী উর্মি আক্তার (১৫), পুত্রবধূ মোহাম্মদ সোহেলের স্ত্রী ৬ মাসের অন্ত:স্বত্তা হুমায়রা আক্তার (২২), সোহেলের শিশু পুত্র আরফাতুল ইসলাম ইমন (০২), আনসার উল্লাহর মেয়ে ও স্কুল ছাত্রী মায়মুনা ছিদ্দিকা নিশাত (০৭), রাজাখালী ইয়ার আলী খান উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্র আনসার উল্লাহর ছেলে মো: রুবেল (১৩) ও আনসার উল্লাহর ছেলে রাসেল (২১)।

এদের মধ্যে পরীক্ষার্থী উর্মি আক্তারের হাতে জখম মারাত্মক। প্রতিপক্ষের ছোড়া ইটের টুকরা তার ডানহাতে এসে লাগে। এ সময় ওই ছাত্রী মারাত্মক জখম পায় ডানহাতে।

চলমান এস,এস,সি পরীক্ষায় মঙ্গলবার ৫ ফেব্রুয়ারী পরীক্ষায় অংশ নেওয়া তার পক্ষে অনেকটা দু:সাধ্য হয়েছে বলে স্থানীয় সুত্র নিশ্চিত করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সুত্র জানায়, ওই দিন বিকেলে মৌলভীপাড়ায় মৃত নুর হোসেনের ছেলে মো: আজম ও আনসার উল্লাহর ছেলে রাসেলের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়েছে। এর সুত্র ধরে তারা হাতাহাতিতে জড়িয়ে যায়।

এর জের ধরে আজম, তার ভাই কাসিম আলী, কাইছারের ছেলে মোর্শেদ, কাসিম আলীর ছেলে শাহেদসহ ৭/৮ জনের উত্তেজিত লোকজন ধারালো কিরিচ ও লাঠিসোটাসহ আ’লীগ নেতা আনসার উল্লাহর বসতবাড়িতে হানা দেয়। এ সময় ওই দুবৃর্ত্তরা বসতবাড়ি ভাংচুরসহ ব্যাপক তান্ডব চালায়।

এক পর্যায়ে তারা পরীক্ষার্থী উর্মি আক্তার ও ভাবী অন্ত:স্বত্তা হুমায়রাকে পায়ে লাথি ও কিল ঘুষি মারে। তারা কুপিয়ে আনসার উল্লাহর স্ত্রীকেও জখম করে। দু’পক্ষের মধ্যে ইট পাটকেল নিক্ষেপ হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ১০ম শ্রেনীর ছাত্র মনির উদ্দিন, ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী নিশু, হাজী আলামিয়ার স্ত্রী ফাতেমা, জয়নাল আবদীনের স্ত্রী শেফা আক্তার, আলী মকছুদের স্ত্রী পারভীন, কাইছারের স্ত্রী কাইছারা বেগম জানায়, কাসিম আলী গং কিরিচ নিয়ে আনসার উল্লাহর বাড়িতে এসে হামলা চালায়। ইটপাটকেল বিনিময় হয়েছে। একটি কিরিচ উদ্ধার হয়েছে।

পেকুয়া থানার এস,আই ইয়াকুব জানায়, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ভাংচুর হয়েছে। তবে উত্তেজনা প্রশমিত হয়েছে। আহতদের চিকিৎসা নিতে বলেছি।

Share this post

PinIt
scroll to top