izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

সরকারি ডাক্তারদের প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

doctor-high-coart.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৪ ফেব্রুয়ারি) :: সরকারি ডাক্তারদের বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ আইনজীবী এই রিট আবেদন দাখিল করেন।  মঙ্গলবার এই রিট আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান।

রিট আবেদনে স্বাস্থ্যসচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) সভাপতি এবং বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতিকে বিবাদী করা হয়েছে।

সরকারি ডাক্তারদের অফিস সময়ের মধ্যে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে গত ২৯ জানুয়ারি পাঠানো আইনি নোটিশের জবাব না পেয়ে এই রিট আবেদন করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান, অ্যাডভোকেট সালাহ উদ্দিন রিগ্যান, অ্যাডভোকেট সুজাদ মিয়া, অ্যাডভোকেট মো. আমিনুল হক ও অ্যাডভোকেট মো. কাউছার উদ্দিন মণ্ডল এই রিট আবেদন দাখিল করেন।

লক্ষ্মীপুরে বাবুল হোসেন নামের এক রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দৈনিক কালের কণ্ঠে গত ২৯ জানুয়ারি ‘ডাক্তার ব্যক্তিগত চেম্বারে, হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন যুক্ত করে এই রিট আবেদন করা হয়েছে।

রিট আবেদনে সরকারি চিকিৎসকদের অফিস সময়ে (ডিউটি টাইম) বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্র্যাকটিস বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না এবং অফিস সময়ে বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্র্যাকটিস বন্ধে পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আরজি জানানো হয়েছে। রিট আবেদনে সব সরকারি হাসপাতালের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা এবং সরকারি হাসপাতালে অনিয়ম বন্ধে নির্বাহী হাকিম দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া চিকিৎসকদের জন্য একটি গাইডলাইন করতে বিশেষজ্ঞ ও অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের দিয়ে একটি স্বাধীন কমিশন গঠন করার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। রুল বিচারাধীন থাকাবস্থায় সরকারি চিকিৎসকদের অফিস সময়ে (ডিউটি টাইম) বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্র্যাকটিস থেকে বিরত রাখার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top