পেকুয়ায় হামলায় আহত-২

hamla-Pekua.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(১৩ ফেব্রুয়ারী) :: পেকুয়ায় আ’লীগ নেতাসহ ২ জনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। স্থানীয়রা এদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

১৩ ফেব্রুয়ারী (বুধবার) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের কলেজ গেইট চৌমুহনীতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন সদর ইউনিয়নের হরিনাফাঁড়ি গ্রামের মৃত আলী আহমদের ছেলে আহমদ ছবি (৪৫) ও তার ভাতিজা ৪ নং ওয়ার্ড আ’লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হরিণাফাড়ির মৃত আবু ছিদ্দিকের ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৯)।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্র জানায়, ওই দিন সন্ধ্যায় আহমদ ছফি চৌমুহনীতে পৌছে। এ সময় পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা একই ইউনিয়নের হেলাল, জালাল সহ ১০/১২ জনের দুবৃর্ত্তরা তাকে ঘিরে ফেলে। এ সময় তাকে হাতুড়ি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করে। ওয়ার্ড আ’লীগ নেতা নজরুল ইসলাম চাচাকে উদ্ধার করতে ওই স্থানে ছুটে যায়। এ সময় তারা চাচা-ভাতিজা এ ২ জনকে মারাত্মক জখম করে।

আহমদ ছফি জানায়, তিনি টিউবওয়েল স্থাপন করে থাকেন। ২ মাস আগে দরবেশকাটায় একটি গভীর নলকুপ বসায়। ওই নলকুপে সুপেয় পানির দেখা মেলেনি। পরবর্তীতে ওই বাড়িতে তিনি নিজ খরচে আরেকটি টিউবওয়েল স্থাপন করে। সেটিতেও পানি পাওয়া যায়নি। হামলাকারী হেলাল উদ্দিন দরবেশকাটার ওই পরিবারের নিকট আত্মীয়। তারা পাইপমেস্ত্রী আহমদ ছবিকে চৌমুহনীতে আটকিয়ে ১০/১২ দিন আগে একটি অলিখিত স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে নেয়।

আহমদ ছবি জানায়, দরবেশ কাটায় টিউবওয়েল স্থাপনে যন্ত্রনাংশ প্রায় আড়াইলক্ষ টাকার মালামাল জব্দ করে। সে গুলি তারা বিক্রি করে দেয়। ওই দিন সন্ধ্যায় আমি ও আমার ভাতিজাকে পিটিয়ে ৪০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়।

ওয়ার্ড আ’লীগ নেতা নজরুল ইসলাম জানায়, আমি চাচাকে উদ্ধার করতে গিয়েছিলাম। তারা আমাকেও হত্যার উদ্দেশ্যে জখম করে।

Share this post

PinIt
scroll to top