জইশ-এ-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিচ্ছে পাকিস্তান !

masood-pak-759-1.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৪ মার্চ) :: চাপে’ পড়ে পাকিস্তানের ভোল বদল! ভারত-পাক সম্পর্কের কালো মেঘ কাটাতে এবার জইশ-এ-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে ‘যে কোনও মুহূর্তে’ পদক্ষেপ করতে পারে ইমরান খান সরকার। শুধু তাই নয়, রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে মাসুদ আজহারকে ‘বিশ্ব সন্ত্রাসী’ হিসেবে ঘোষণা করার প্রস্তাবে নিজেদের বিরোধী অবস্থান থেকে সরে দাঁড়ানোরও সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসলামাবাদ। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে এমনই খবর।

এ প্রসঙ্গে সংবাদসংস্থা পিটিআইকে একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘‘জইশ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যে কোনও মুহূর্তে জইশের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করতে পারে সরকার।’’ ওই সূত্র আরও জানাচ্ছে, ‘‘ভারত-পাক উত্তপ্ত পরিস্থিতি বদলাতে জইশের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইমরান খান সরকার।’’

ওই সূত্রের মতে, জইশের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করলে, এটা ইমরান সরকারের আরও একটি তাৎপর্যপূর্ণ পদক্ষেপ হবে। ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে ফিরিয়ে দুনিয়ায় উল্লেখযোগ্য বার্তা দিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। শেষমেশ মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করলে, বিশ্ব দরবারে ইমরান সরকারের নয়া ভাবমূর্তি তৈরি হবে।

তবে মাসুদ আজহারকে গৃহবন্দি করা হবে নাকি হেফাজতে নেওয়া হবে, সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত করে জানা যায়নি। অন্যদিকে, কয়েকটি সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ‘বিশ্ব সন্ত্রাসী’ হিসেবে জইশ প্রধানকে ঘোষণা করলে বিরোধিতা করবে না পাকিস্তান। এ প্রসঙ্গে দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনকে এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‘সরকারকে ঠিক করতে হবে, কোনও ব্যক্তি আগে না দেশের স্বার্থ আগে।’’

এ প্রসঙ্গে, পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি বলেছেন, ‘‘জইশ-সহ নিষিদ্ধ সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে আগেই ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। আগামী দিনেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে ভারতের চাপে নয়।’’

উল্লেখ্য, মাসুদ আজহারকে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা তালিকায় অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়ে গত সপ্তাহেই নতুন করে প্রস্তাব দিয়েছে আমেরিকা, ব্রিটেন ও ফ্রান্স। আগামী ১০ দিনের মধ্যে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা কমিটি।

জইশের বিলাসবহুল সদর দপ্তর

মার্কাজ সুভানাল্লা। তিন একর জায়গা জুড়ে বিশাল কমপ্লেক্স। ৬০০ ক্যাডারের থাকার ব্যবস্থা আছে সেখানে। এটি পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের বাহাওয়ালপুরে নিষিদ্ধ সন্ত্রাসবাদী সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের সদর দপ্তর।

বিলাসবহুল এই কমপ্লেক্সটি বানাতে তিন বছর (২০১২-১৫) সময় লাগে জইশ প্রধান মাসুদ আজহারের। এখানে রয়েছে অত্যাধুনিক জিম এবং সুইমিং পুল। বাহাওয়ালপুর কমপ্লেক্সই জইশ সদস্যদের ‘প্রবেশ ফটক’। এখান থেকে বালাকোটের শিবিরে সন্ত্রাসবাদী প্রশিক্ষণের জন্য পাঠানো হয়। মাসুদ আজহার ভাইদের ও আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে এই কমপ্লেক্সে থাকেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া যেসব সরকারি কাগজপত্র হাতে পেয়েছে সেখান থেকে জানায় প্রাদেশিক ও কেন্দ্রীয় সরকারের সহায়তায় জইশের এই সদর দপ্তর তৈরি হয়। এ ছাড়া মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকা এবং যুক্তরাজ্য থেকেও তহবিল সংগ্রহ করেন মাসুদ আজহার।মার্কাজ সুভানাল্লাতে জইশ-এর উচ্চপদস্থ নেতারা গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক সারেন। প্রতি শুক্রবার মাসুদ আজহারের ভাই মুফতি আবদুল রউফ আজগর বা অন্যান্য জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা জিহাদে যেতে তরুণদের উদ্বুদ্ধ করে ভাষণ দেন।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri