রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকুরীর দাবীতে কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে অবস্হান ও প্রতিরোধ কর্মসূচী

received_344336246201159.jpeg

শহিদুল ইসলাম,উখিয়া(৪ মার্চ) :: রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্থানীয়দের চাকরিতে অগ্রাধিকার দাবী এনজিওগুলো তোয়াক্কা না করায় “অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি উখিয়ার” উদ্যোগে ৪ মার্চ সোমবার সকাল থেকে শান্তিপূর্ণ অবস্থান ও প্রতিরোধ কর্মসূচী পালিত হয়েছে।

কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের কোটবাজার চৌরাস্তার মাথায় কাপনের কাপড় পরে অবস্থান নেন চাকরি বঞ্চিত শত শত বেকার যুবকরা । এইসময় তাদের সমর্থনে উখিয়ার হাজার হাজার জনতাও রাস্তায় শান্তিপূর্ণ অবস্থান গ্রহণ করেন। কর্মসূচি পালনকালে রাস্তার ধারে হাজার হাজার যানবাহন আটকে পড়ে। এদিকে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচিতে পুলিশ বাধাপ্রধানের চেষ্টা করলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ও ঘটে। পরে উপজেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের আশ্বাসের ভিত্তিতে এক সপ্তাহের আল্টিমেটাম দিয়ে শান্তিপূর্ণ অবস্থান স্থগিত করার ঘোষনা দেন যুবনেতা সাংবাদিক ইমরুল কায়েস চৌধুরী।

অবস্থান কর্মসূচী পালন কালে অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি উখিয়ার নেতৃবৃন্দরা বলেন, এক মাস আগে জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন ও নির্বাহী কর্মকতা নিকারুজ্জামান চৌধুরী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত এনজিওদের সমন্বয় সভায় আন্দোলনরত স্থানীয়দের চাকরিতে অগ্রাধিকার দেওয়ার জন্য বিভিন্ন মেয়াদে সময় বেধে দিলেও উক্ত এনজিও গুলো বিভিন্ন অজুহাতে তার কোন গুরুত্বারুপ করে নি। যার পরিপ্রেক্ষিতে আন্দোলনকারীদের অহিংস আন্দোলনকে সহিংসতার দিকে নিয়ে যেতে বাধ্য করা হচ্ছে। যার সমস্ত দায়ভার এনজিও গুলোকে নিতে হবে বলে নেতারা কঠোর হুশিয়ারী দেন।

তারা আরো জানান, সাম্প্রতিক সময়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত এনজিও গুলোতে স্থানীয়দের গণহারে ছাটাই করা হয়েছে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ঠেকাতে দেশী-বিদেশী এনজিও গুলো পরিকল্পিতভাবে স্থানীয়দের চাকরী থেকে ছাটাই করছে। এছাড়াও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নতুন নতুন চাকরীর ক্ষেত্রে স্থানীয়দের বাদ দিয়ে এনজিও’র কর্তারা বিশেষ সুবিধা নেয়ার মাধ্যমে তাদের স্বজনদের চাকরী দিচ্ছে।

অবস্থান কর্মসূচী পালনকারীদের উদ্দেশ্যে উখিয়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফখরুল ইসলাম বলেন, আপনাদের আন্দোলন ও দাবীর যৌক্তিকতা রয়েছে। আপনাদের সব দাবী মেনে নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে আপনাদের বার্তা জেলা প্রশাসক ও ইউএনও মহোদয়ের মাধ্যমে শীর্ষ পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তিনি অবস্থান কর্মসূচি স্থগিতের অনুরোধ জানান আন্দোলনকারীদের।

প্রশাসনের আশ্বাস পেয়ে যুবনেতা সাংবাদিক ইমরুল কায়েস চৌধুরী অবস্থান কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষনা দিয়ে বলেন, আমাদের যৌক্তিক দাবী আদায়ে আমরা শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছি। আপনাদের আশ্বাসের ভিত্তিতে আমাদের শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করা হচ্ছে। দাবী আদায়ে আরো এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হচ্ছে এনজিওগুলোকে।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri