izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

অনিয়ম-দুর্ণীতিতে ঠিকাদারদের ছাড় নয় : মেয়র মুজিবুর রহমান

-সড়ক-উন্নয়ন-পরির্দশন-১.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি(১৩ মার্চ) :: এগিয়ে চলছে ডলফিন মোড় থেকে মেরিন ড্রাইভে সংযুক্ত কলাতলী সড়কের সাড়ে ১২ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বর্ষার আগেই গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের ড্রেনসহ আরসিসি ঢালাইয়ের কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান।

এদিকে বুধবার বিকেলে কাউন্সিলর ও পৌরসভার সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে কাজের অগ্রগতি ও গুনগত মান পরিদর্শনে যান মেয়র মুজিব। এসময় পর্যটক ও এলাকার ভুক্তভোগী জনসাধারণ উন্নয়ন কর্মকান্ডের সার্বিক প্রশংসা করেন এবং মেয়রসহ পৌর পরিষদকে ধন্যবাদ জানান।

কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মুহাম্মদ নুরুল আলম জানান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ প্রকল্প (ইউজিপি-থ্রি) এর অধিনে ১শ’ ২৮ কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালিত হচ্ছে।

যার মধ্যে কলাতলী ডলফিন মোড় থেকে মেরিন ড্রাইভ লাগোয়া বেলি হ্যচারী পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার সড়কের ড্রেনসহ আরসিসি ঢালাইয়ে দু’টি আলাদা প্যাকেজে প্রায় সাড়ে ১২ কোটি টাকার কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে পর্যটকসহ কক্সবাজারবাসীর মেরিন ড্রাইভ দিয়ে যাতায়তের ক্ষেত্রে সকল সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য নেতৃত্বে সবগুলো প্রকল্পের উন্নয়ন কর্মকান্ড শতভাগ স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতার সাথে এগিয়ে চলছে। এখানে কোন ধরণের অনিয়ম-দুর্ণীতি তিনি প্রশ্রয় দেননা। শুধু তাই নয়, উন্নয়ন কাজে বাধা প্রদানসহ প্রকল্পে অনিয়ম-দুর্ণীতির প্রমাণ মিললে ঠিকাদারসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক আইনানুগ ব্যবস্থাও নেয়া হবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন মেয়র।

এদিকে পরিদর্শনকালে প্রতিটি উন্নয়ন কাজের শতভাগ গুণগতমান নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর নির্দেশনা রয়েছে বলে জানিয়ে মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, ‘পর্যটন নগরী খ্যাত এই কক্সবাজারকে নিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনেক স্বপ্ন এবং মহাপরিকল্পনা রয়েছে। সেইসব পরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে নতুন দায়িত্ব নেয়ার পর বিশাল কয়েকটি বরাদ্ধ পাওয়া গেছে। নিঃসন্দেহে এটি পৌরবাসীর জন্য সু-খবর। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ ইউজিপি-থ্রি প্রকল্পের সবাইকে বিশেষ ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

মেয়র মুজিব আরো বলেন, নির্বাচনের আগে ভোটারদের কাছে ওয়াদা দিয়েছিলাম, ‘আমি মেয়র নির্বাচিত হলে এলাকার রাস্তা-ঘাট, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসাসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন, ড্রেনেজ সমস্যা সমাধান, জলাবদ্ধতা দুরিকরণ, যানজট নিরসন, বেদখলে থাকা পৌরসভার নিজস্ব সম্পদ উদ্ধার করাসহ কক্সবাজারকে বদলে দিবো, ইনশাআল্লাহ।’

এছাড়া শতভাগ স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতার সাথে জনগনের অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে জনকল্যাণমূলক সব ধরণের কাজে পৌরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন মেয়র মুজিব।

সড়ক পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র-২ হেলাল উদ্দিন কবির, প্যানেল মেয়র-৩ শাহেনা আক্তার পাখি, ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী মোরশেদ আহমদ বাবু, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আক্তার কামাল আজাদ, ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজানুর রহমান, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর দিদারুল ইসলাম রুবেল, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাহাব উদ্দিন সিকদার, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ওমর ছিদ্দিক লালু, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাজ বিহারী দাশ, ১০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সালাউদ্দিন সেতু, ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুর মোহাম্মদ, সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর ইয়াছমিন আক্তার, নাছিমা আক্তার বকুল, পৌরসভার সচিব রাসেল চৌধুরী, নির্বাহী প্রকৌশলী নুরুল আলম, মেয়র পিএ রূপনাথ চৌধুরী, প্রশাসনিক কর্মকর্তা খোরশেদ আলম, সহকারী প্রকৌশলী সিরাজুল কালাম আজাদ বাবুল, সহকারী প্রকৌশলী টিটন দাশ প্রমুখ।

Share this post

PinIt
scroll to top