izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

খালেদা জিয়ার কৌশল

khaleda-zia-1.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৮ মার্চ) :: বেগম খালেদা জিয়ার কৌশল বুঝছেন না এখন বিএনপির নেতারাও। বেগম খালেদা জিয়া তাঁর স্বাস্থ্য এবং অসুস্থতা নিয়ে লুকোচুরি করছেন। নিজেকে রহস্যাবৃত করে রেখেছেন। কেন তিনি তা করছেন সেটা বুঝতে পারছেন না বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারাও। বিএনপির নেতৃবৃন্দরা বেগম খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছেন।

কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসা না নিতে অনড় অবস্থানে রয়েছেন। আজ গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার আদালতে উপস্থিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ জানায় অসুস্থতার জন্য তাকে আদালতে হাজির করা সম্ভব হচ্ছে না।

এর আগে বেগম খালেদা জিয়ার জন্য বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন হয়েছিল। সেখানে তাকে নিয়ে যাওয়ার কথাও ছিল। এজন্য দুটি কেবিন খালি করেছিল মেডিকেল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু খালেদা জিয়া চিকিৎসার ব্যাপারে অনড় অবস্থানে গিয়েছেন। তিনি বলেছেন, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি চিকিৎসা নিতে আগ্রহী নন।

একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, বেগম জিয়া তার অসুস্থতা নিয়ে একটা রাজনৈতিক কৌশল অবলম্বন করছেন। এই প্রক্রিয়ায় তিনি নিজেই তার মুক্তির প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে চাইছেন। কিন্তু এই কৌশলটি ঠিক কি, তা বুঝতে পারছেন না বিএনপির নেতারাও। একাধিক নেতারা বলছেন, বেগম খালেদা জিয়া এখন বিএনপির নেতাদেরও বিশ্বাস করছেন না।

বিএনপির মধ্যেই অনেক সরকারী চর রয়েছে বলে বেগম খালেদা জিয়া মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে সাক্ষাতে স্পষ্টই বলেছেন। এজন্য তিনি তার কৌশল গোপন করেছেন এবং তিনি বলেছেন, তিনি একাই লড়বেন এবং একাই তিনি তার মুক্তির ব্যবস্থা করবেন। সেই লড়াইয়ের কৌশল হিসেবেই আদালতে অনুপস্থিত থাকছেন। বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েও যাচ্ছেন না বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

তবে জেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে যে, বেগম খালেদা জিয়ার যে অসুস্থতার কথা বলা হয়েছে সেটা আসলে অনেক ফুলিয়ে ফাপিয়ে বাড়িয়ে বলা হচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়ার নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা হচ্ছে। প্রেসার, ব্লাড সুগার এবং অন্যান্য রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট স্বাভাবিকই রয়েছে। শুধুমাত্র বার্ধক্য জনিত কারণে তাঁর হাটাচলার অসুবিধা হচ্ছে। তাঁর দীর্ঘদিনের পুরনো আর্থ্রাইটিসের কারণে তিনি হাঁটতে চলতে পারছেন না।

এটাই তার প্রধান সমস্যা। অন্য বিষয়গুলো নিয়ে তার কোন অসুবিধা নেই। কিন্তু আজ বেগম খালেদা জিয়া হুমকি দিয়েছেন তিনি জেল কর্তৃপক্ষর দেওয়া ওষুধের উপর আস্থা রাখতে পারছেন না। ওষুধ খাওয়াও তিনি ছেড়ে দিবেন। পর্যায়ক্রমে ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে তিনি নিজেকে অসুস্থ বানিয়ে সরকারের কাছ থেকে দাবি আদায় করবেন কিনা সেটা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কারণ আজ তিনি জেল কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিয়েছেন যে, নিয়মিত যে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়, সেটা তিনি করবেন না।

জানা গেছে পর্যায়ক্রমে তিনি স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করার পাশাপাশি ওষুধ খাওয়াও বন্ধ করে দিতে পারেন। আস্তে আস্তে নিজেকে তিনি অসুস্থ প্রমাণ করতে পারেন। এমন একটা পরিস্থিতি তৈরী করতে পারেন যেখান থেকে সরকার বাধ্য হয় তাকে ইউনাইটেড হসপিটালে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য।

একটা সূত্র বলছে, জেল কর্তৃপক্ষকে এটাও হুমকি দিচ্ছেন তাকে যদি তাকে যদি তার পছন্দের চিকিৎসক ও হসপিটালে চিকিৎসা করানো না হয়, তাহলে তিনি অনশনেও যেতে পারেন। সেই অনশন ভাঙ্গতেই হয়তো তাকে ইউনাইটেড হসপিটালে নেওয়া হবে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো, এর আগে তিনি তার অসুস্থতার ব্যাপারে কথা বিএনপির নেতৃবৃন্দকে বললেও, এখন বিএনপির নেতৃবৃন্দই তাঁর প্রতিপক্ষ হয়েছে।

বিএনপির নেতৃবৃন্দ তার চিকিৎসার খোঁজ খবর নিলে তিনি বলেছেন যে, সরকারকে তথ্য দেওয়ার জন্যই কি চিকিৎসার খোঁজ খবর নিচ্ছেন? বেগম খালেদা জিয়া এখন কাউকেই বিশ্বাস করতে পারছেন না। না সরকার, না নিজ দলের নেতৃবৃন্দকে। তিনি মনে করছেন, একাই তিনি ইউনাইটেডে চিকিৎসার জন্য যে লড়াই করবেন। কিন্তু একা লড়াই করে তিনি জয়ী হতে পারেন কিনা, সেটাই দেখার বিষয়।

Share this post

PinIt
scroll to top