পেকুয়ায় ৫০ শয্যা হাসপাতালে ১৫ কোটি টাকার ভবন

haspital.jpg

মো: ফারুক,পেকুয়া(২১ মার্চ) :: কক্সবাজারের পেকুয়া সরকারি হাসপাতালকে ৫০ শয্যা হাসপাতালে উন্নতিকরণে প্রায় ১৫ কোটি টাকার ভবন নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। প্রথম পর্যায়ে এ ভবনটি ৪তলা বিশিষ্ট হলেও পর্যায়ক্রমে ভবনটি ৮তলায় উন্নতি করা হবে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ভবনটি পূর্ণাঙ্গ নির্মাণ কাজ শেষ হলে প্রতিদিন সহস্রাধিক রোগী সেবা নিতে পারবে। এতে সাধারণ জনগণের ভোগান্তি কমে যাওয়ার পাশাপাশি চিকিৎসকের আবাসন সংকটও কমে যাবে। বর্তমান সরকারের ক্ষমতার মেয়াদকালে চিকিৎসা সেবায় সাফল্যের ধারাবাহিকতায় পেকুয়া সরকারি হাসপাতালটি ২০ শয্যা থেকে ৫০শয্যায় উন্নতিকরণে উদ্যোগ গ্রহণ করে।

এরই অংশ হিসাবে ২১০৮ সালে স্বাস্থ্য প্রকৌশল মন্ত্রনালয়ের অধীনে কাশেম কন্সট্রাকশন এন্ড জেআরএম ব্রাদার্স নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটির ঠিকাদার নিয়োগপ্রাপ্ত হন। কাজ শুরু করার পর থেকে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সিডিউল অনুযায়ী কাজ করে যাচ্ছেন। ডিপার্টমেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো: এমরানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে চলছে ভবন নির্মাণ কাজ।

এবিষয়ে পেকুয়া সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক ডাক্তার মুজিবুর রহমান বলেন, ভবন নিয়ে আমরা খুব কষ্টে ছিলাম। রোগীর সেবা দিতেও কষ্ট হত। এছাড়াও চিকিৎসকের আবাসন সংকট ছিল প্রকট। বর্তমান ঠিকাদার স্বচ্ছতার সহিত কাজটি দ্রুত শেষ করার উদ্যোগ নিয়েছে। নতুন ভবনটির কাজ শেষ হলে হাসপাতালের সমস্ত সমস্যা দূর হবে। এছাড়াও রোগীর সেবা ও ওয়ার্ড়গুলোতে রোগী রাখতে সমস্যা দূর হবে। বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জানাই পেকুয়া সরকারি হাসপাতালে এ রকম একটি ভবন দেয়ার জন্য।

ডিপার্টমেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো: এমরান বলেন, সিডিউল ও ডিজাউন অনুযায়ী ভবনটির কাজ সম্পন্ন হচ্ছে। যা এলাকাবাসী ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কন্সট্রাকশন কাজে খুব খুশি। আমি মনে করি পেকুয়াবাসীর জন্য হাসপাতালটি গর্বের বিষয়। যা বাংলাদেশ সরকারের একটি উন্নয়নের ধারাবাহিকতা।

ঠিকাদার কাশেম বলেন, উন্নয়নমূলক কাজটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে স্বচ্ছতার সহিত করা হচ্ছে। দ্রুত কাজ শেষ করে উম্মুক্ত করে দেয়া হবে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri