পেকুয়ায় জিয়াউর রহমান কলেজ ছাত্রের ছুরিকাঘাতে আহত-৩

pp28.jpg

মোঃফারুক,পেকুয়া(২৮ মার্চ) :: কক্সবাজারের পেকুয়ায় জিয়াউর রহমান কলেজ ছাত্র আরমানুল হক প্রিন্সের নেতৃত্বে উৎশৃঙ্খল কিছু ছাত্রের ছুরিকাঘাতে ওই কলেজের সাবেক ছাত্র উপজেলা ছাত্রলীগের উপ-ত্রাণ দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ও ছাত্রলীগ নেতা লিয়ন ও ফোরকান নামের একজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

আহত সাইফুল ইসলাম পেকুয়া সদর ইউনিয়নের শেখের কিল্লা ঘোনা এলাকার মাষ্টার নুরুল ইসলামের ছেলে ও লিয়ন মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ইউনুছ চৌধুরীর ছেলে।

আহত তিনজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ রেফার করা হয়েছে।ঘটনার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে আহত হয়েছে দুই পুলিশ সদস্য।

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) দুপুর ১টায় জিয়াউর রহমান কলেজে এঘটনা ঘটে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন কলেজে বিদায় অনুষ্ঠান চলছিল। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সাবেক ছাত্র ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম সহ অপর দুইজন বিদায় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। ওই সময় কলেজ ছাত্র অারমানুল হক প্রিন্সের নেতৃত্বে একদল ছাত্র পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তাদের গতিরোধ করে মারধর শুরু করে।

একপর্যায়ে প্রিন্সের ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজন গুরুতর অাহত হয়। এঘটনায় পুলিশ দ্রুত ব্যবস্থা নিলেও কলেজ প্রশাসন ছিল সম্পূর্ণ নিরব। এমনকি ছুরিকাঘাতে আহত তিনজন ঘটনাস্থলে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়লেও তাদের উদ্ধারে কোন ধরণের ব্যবস্থা নেয়নি কলেজ কর্তৃপক্ষ। উল্টো হামলাকারী ছেলেকে পাশে বসিয়ে বিদায় অনুষ্ঠানের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিল। পরে পুলিশ অনুষ্ঠানস্থলের মঞ্চ থেকে হামলাকারী আরমানুল হক প্রিন্সকে আটক করে। একই ঘটনায় জড়িত আরো দুইজনকে আটক করে পুলিশ।

এবিষয়ে কলেজের অধ্যক্ষ ওবায়দুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, ঘটনাটি কলেজ ক্যান্টিনে সংঘঠিত হয়েছে। হামলার বিষয়টি আমরা না জানলেও আমার ছাত্র প্রিন্স এসে বলল বহিরাগত কিছু লোক তাদের উপর হামলা করেছে। তাই ছাত্রকে পাশে বসিয়ে অনুষ্ঠান চালাচ্ছিলাম। ছুরিকাঘাত করার কথা আমাদের কাছে স্বীকার করেনি ছাত্র আরমানুল ইসলাম। পরে জানতে পেরে হাসপাতালে গিয়ে তাদেরকে দেখে অাসি। বিষয়টি কলেজে সংশ্লিষ্ঠ না তাই এবিষয়ে আমাদের করার কিছুই নাই।

পেকুয়া থানার ওসি জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, সংঘঠিত গঠনার সাথে সাথে পুলিশ দ্রুত ব্যবস্থা নেয়। ঘটনায় জড়িত আরমানুল হক প্রিন্সসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। আহত হয়েছে পুলিশের দুই সদস্য। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে প্রশাসন সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
alsancak escort bornova escort gaziemir escort izmir escort buca escort karsiyaka escort cesme escort ucyol escort gaziemir escort mavisehir escort buca escort izmir escort alsancak escort manisa escort buca escort buca escort bornova escort gaziemir escort alsancak escort karsiyaka escort bornova escort gaziemir escort buca escort porno