জাতীয় কাউন্সিল সামনে রেখে তৃণমূল গোছাচ্ছে আওয়ামী লীগ

alg-21st.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(২ এপ্রিল) :: দলের জাতীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে ব্যস্ততা শুরু হয়ে গেছে আওয়ামী লীগে। এখন থেকেই দলের তৃণমূল গোছানোর কাজ শুরু করে দিয়েছে দলটি। আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, ক্রমানুসারে জেলা পর্যায়ে মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি করা হবে।

দলীয় সূত্র জানায়, আগামী ৫ এপ্রিল (শুক্রবার) দলের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে থেকে আরও কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, আগামী অক্টোবরে হতে যাচ্ছে দলের ২১তম জাতীয় কাউন্সিল। যার জন্য এখন থেকেই তৃণমূল সাজানোর কাজ করে রাখতে চান তারা। দলীয় হাইকমান্ডের পক্ষ থেকেও এ সময়ের মধ্যে ওয়ার্ড থেকে শুরু করে তৃণমূলের সকল মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটিগুলোতে পুনরায় সম্মেলন অনুষ্ঠান এবং সম্মেলনে আগত কাউন্সিলরদের তালিকা ঠিক করে নেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে।

জানা গেছে,  গত ২৯ মার্চ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সভায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন ও দলের আগামী কাউন্সিলকে সামনে রেখে দেশব্যাপী সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক দেশব্যাপী দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে আটটি টিম গঠন করা হয়।দলের উপদেষ্টামণ্ডলি, সভাপতিমণ্ডলি ও কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে ওই কমিটিগুলো গঠিত হবে। ওই টিমগুলোর দায়িত্ব থাকবে তৃণমূল পর্যায়ের দলীয় সম্মেলন ও সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড নিবিড়ভাবে তদারকি করা।

আওয়ামী লীগ সূত্র জানান, ২৯ মার্চ সভাপতিমণ্ডলির সভায় যে সকল জেলার কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ তা দ্রুত করে ফেলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসে। এরইমধ্যে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। সারা দেশে কোন কোন জেলা কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ক্রমানুসারে সারা দেশে দলের সকল জেলা কমিটি নতুনভাবে করা হবে বলে আওয়ামী লীগের সূত্রগুলো বলছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, সারা দেশে জেলা পর্যায় দলের সাংগঠনিক কার্যক্রমকে আরও উজ্জীবিত করার লক্ষ্যেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শুক্রবার (৫ এপ্রিল) দলের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক থেকে আরও বেশ কিছু দিক নির্দেশনামূলক সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলেও জানান তিনি।

দলীয় সূত্র জানায়, ২৯ মার্চ সভাপতিমণ্ডলির সভায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী সারাদেশ দলীয়ভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে বিস্তারিত কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ লক্ষ্যে সারা দেশে আওয়ামী লীগের সর্বস্তরে সাংগঠনিকভাবে বছরব্যাপী উপযোগী কর্মসূচি পালন ও গ্রন্থ প্রকাশের সিদ্ধান্ত হয়।

আওয়ামী লীগের সূত্র জানায়,  জাতীয় সম্মেলনের আগে তৃণমূলকে সুসংহত করার অংশ হিসেবে শুরুতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তরের সম্মেলন করতে চায় আওয়ামী লীগ।

সে লক্ষ্যে গত রোববারের সম্পাদকমণ্ডলির বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে দলের একটি সূত্র জানায়।

গত ৩১ মার্চ আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে দলের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা জানিয়েছেন।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া দলের নীতি-নির্ধারণী ফোরাম কার্যনির্বাহী সংসদে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসতে পারে বলেও আওয়ামী লীগের সূত্রগুলো বলছে।

২০১৬ সালে আওয়ামী লীগের সর্বশেষ অর্থাৎ ২০তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ৩ বছর মেয়াদে সভাপতি পদে পুনর্নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা এবং প্রথমবারের মতো সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান ওবায়দুল কাদের।

২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীকে সামনে রেখে সরকারের ‘মুজিব বর্ষ’ পালনের ঘোষণা এবং ২০২১’এ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালনের মতো বৃহত রাষ্ট্রীয় ও দলীয় কর্মসূচি রয়েছে। সব মিলিয়ে এর আগেই সংগঠনকে গুছিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri