izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

চ্যাম্পিয়নস লিগে কোয়ার্টার ফাইনালে প্রথম লেগ জিতেছে টটেনহাম ও লিভারপুল

spurs.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(এপ্রিল) :: ইউরোপ সেরার টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়নস লিগের ‘অল ইংলিশ’ কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগ জিতেছে টটেনহাম। ঘরের মাঠে ম্যানচেস্টার সিটিকে তারা হারিয়েছে ১-০ গোলে। আরেক ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলও জয় পেয়েছে ঘরের মাঠে। অ্যানফিল্ডে পোর্তোর বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতে সেমিফাইনালের পথটা সহজ করে নিয়েছে অলরেডস।

ইংলিশ প্রিমিয়র লিগে লিভারপুলের সঙ্গে শীর্ষে ওঠার ইঁদুরদৌড় চলছে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির। তৃতীয়স্থানে থাকা টটেনহ্যাম সে তুলনায় পিছিয়ে বেশ কিছুটা। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যান সিটিকে হারিয়ে প্রথম লেগের শেষে অ্যাডভান্টেজ টটেনহ্যাম হটস্পার। বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটে পেপ গুয়ার্দিয়োলার দলকে ১-০ গোলে হারাল মৌরিসিও পোচেত্তিনোর দল।

দু’দলের শেষ তিনবারের সাক্ষাতে তিনবারই হারের স্বাদ পেয়েছিল টটেনহ্যাম। তাই চলতি চ্যাম্পিয়ন্স শেষ আটের লড়াই শুরুর আগে অ্যাওয়ে ম্যাচ হলেও পাল্লা ভারি ছিল গুয়ার্দিয়োলার দলেরই। কিন্তু ইউরোপ সেরার মঞ্চে এদিন শেষ তিনবারের সাক্ষাতকে নিছক পরিসংখ্যান প্রমাণ করে জয় তুলে নিল স্পারসরা।

একাদশে বার্নার্দো সিলভা-দি ব্রুয়েনাকে ছাড়াই টটেনহ্যামের বিরুদ্ধে এদিন মাঠে নামে ম্যান সিটি। তার উপর স্কাই ব্লুজদের হয়ে ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়াল প্রথমার্ধে আর্জেন্তাইন স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরোর পেনাল্টি মিস। যদিও ঘরের মাঠে এদিন আক্রমণে প্রাধান্য বেশি ছিল টটেনহ্যামেরই। তবু ম্যান সিটি দুর্গে শেষ প্রহরী হিসেবে এদিন স্পারসদের সামনে ঢাল হয়ে দাঁড়ান ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এডেরসন।

প্রথমার্ধে দু-তিনটি দুরন্ত সেভ করে দলকে লড়াইয়ে রাখেন ম্যান সিটি গোলরক্ষক। অন্যদিকে আগুয়েরোর পেনাল্টি মিস ছাড়া প্রথমার্ধে প্রিমিয়র লিগের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের নিয়ে প্রথমার্ধে বলার কিছু নেই। সবমিলিয়ে গোলশূন্য অবস্থাতেই শেষ হয় প্রথম ৪৫ মিনিট।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই স্টার্লিংয়ের দুরন্ত প্রয়াস প্রতিহত করেন টটেনহ্যাম গোলরক্ষক। উত্তেজক ম্যাচে হঠাতই চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় টটেনহ্যাম আক্রমণে প্রধান স্তম্ভ হ্যারি কেনকে। ম্যাচের কর্তৃত্ব এসময় খানিকটা নিজেদের দখলে নিয়ে নেয় সিটি। কিন্তু ঘরের মাঠে ৭৮ মিনিটে ডেডলক খোলে পোচেত্তিনোর দল। ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের পাস বক্সের মধ্যে নিজের আয়ত্তে নিয়ে প্রায় একক দক্ষতায় বাঁ-পায়ের শটে এডেরসনকে পরাস্ত করেন কোরিয়ান সন-হিউং মিন।

শেষ অবধি ১-০ স্কোরলাইনে ঘরের মাঠে প্রথম লেগ জিতলেও দ্বিতীয় লেগের আগে কেনের চোট চিন্তায় রাখবে টটেনহ্যামকে। অধিনায়কের অনুপস্থিতি প্রিমিয়র লিগে প্রথম চারের শেষ করার প্রশ্নেও বাধা হয়ে উঠতে পারে স্পারসদের জন্য। উল্টোদিকে চতুর্মুকুট খেতাব জয়ের লক্ষ্যে দ্বিতীয় লেগে যে গুয়ার্দিয়োলার দল অল-আউট আক্রমণে যাবে, তা একপ্রকার নিশ্চিত।

অপরদিকে ম্যান সিটির পিছিয়ে যাওয়ার দিনে চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ চারের পথে একধাপ এগিয়ে গেল লিভারপুল। ভারতীয় সময় বুধবার রাতে জোড়া গোলে এফসি পোর্তোকে হারালো এই মুহূর্তে ইংলিশ প্রিমিয়র লিগ টপাররা। জুর্গেন ক্লপের দলের হয়ে এদিন গোলদুটি করেন ন্যাবি কেইটা ও রবার্তো ফিরমিনো।

গতবছর চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোয় লিভারপুলের কাছে হেরেই ছিটকে যেতে হয়েছিল পর্তুগালের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের। সুতরাং চলতি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল পোর্তোর কাছে কার্যত বদলার। কিন্তু বদলার ম্যাচে বুধবার প্রথমার্ধের হতাশাজনক পারফরম্যান্সই শেষ চারে যাওয়ার রাস্তা কঠিন করে দিল পর্তুগিজ ক্লাবের।

এদিন পোর্তোর কফিনে প্রথম পেরেকটি পোঁতেন মিডফিল্ডার ন্যাবি কেইটা। প্রিমিয়র লিগে সাউদাম্পটনের বিরুদ্ধেও শেষ ম্যাচে গোল পেয়েছিলেন তিনি। ম্যাচের ৯ মিনিটে বক্সের মধ্যে গুইনিয়ান মিডিওর শট বিপক্ষ এক ডিফেন্ডারের পায়ে আংশিক প্রতিহত হয়ে গোলে ঢুকে যায়। এক্ষেত্রে ইকের ক্যাসিয়াসের দর্শক হওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না। এরপর ২২ মিনিটে সালাহ ম্যাজিকে প্রায় দ্বিতীয় গোলের গন্ধ পেয়ে যায় রেডসরা।

একক দক্ষতায় বল ধরে আগুয়ান মিশরীয় স্ট্রাইকার ক্যাসিয়াসকে পরাস্ত করলেও অল্পের জন্য তাঁর প্রয়াস লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। যদিও দ্বিতীয় গোলের জন্য এরপর বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি লিভারপুলকে। ২৬ মিনিটে আলেকজান্ডার আর্নল্ডের মাটি ঘেঁষা ক্রস থেকে স্কোরলাইন ২-০ করেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ফিরমিনো। ওখানেই জয় কার্যত নিশ্চিত হয়ে যায় রেডসদের। ম্যাচে ফেরার বিক্ষিপ্ত কিছু সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি পোর্তো। ২ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় লিভারপুল।

লকাররুম থেকে ফিরে এসে ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে উদ্যোগী হলেও দ্বিতীয়ার্ধে আর গোল তুলে নিতে পারেনি ক্লপের ছেলেরা। শুরুতেই স্যাদিও মানের একটি গোল অফসাইডের কারণে বাতিল হয়। ৭০ মিনিটে সেনেগাল ফুটবলারের একটি দূরপাল্লার শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। উল্টোদিকে গুরুত্বপূর্ণ অ্যাওয়ে গোল তুলে নেওয়ার কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েও ব্যবধান কমাতে ব্যর্থ হন মারেগা।

সবমিলিয়ে ঘরের মাঠে প্রথম লেগে ২-০ গোলে অ্যাডভান্টেজ লিভারপুল আগামী সপ্তাহে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ফের মুখোমুখি হবে পোর্তোর।

Share this post

PinIt
scroll to top