izmir escort telefonlari
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam

আমেরিকার কাছ থেকে ২২টি সি গার্ডিয়ান ড্রোন কিনছে ভারত

drone-1.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৬ মে) :: ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর জন্য আমেরিকার কাছ থেকে সি গার্ডিয়ান ও এমকিউ-৯ র‌্যাপ্টর ড্রোন কেনার বিষয়টি শিগগিরিই অনুমোদন করতে যাচ্ছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে এর সংখ্যা গত বছর যে পরিকল্পনা করা হয়েছিলো তা থেকে কম।

সরকারি সূত্র জানায়, এ ব্যাপারে শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রকে আনুষ্ঠানিক পত্র দেয়া হবে। ওয়াশিংটন এরইমধ্য সি গার্ডিয়ানের ‘দাম ও প্রাপতা’ সংশ্লিষ্ট বিস্তারিত তথ্য পাঠিয়েছে। এসব ড্রোন দীর্ঘ সময় ধরে হাই-অলটিচুড নজরদারি চালাতে পারে। একই সঙ্গে এগুলোতে রয়েছে হেলফায়ার এয়ার-টু-সারফেস মিসাইল, এডভান্সড মেরিন এভিওনিক্স ও লেজার-গাইডেড বোমা।

ভারত তার উপকূলীয় এলাকায় নজরদারি চালানোর জন্য ২২টি এমকিউ-৯ প্রিডেটর বি গার্ডিয়ান ড্রোন কিনতে ২০১৬ সালের ১৭ জুনে যুক্তরাষ্ট্রের জেনারেল এটমিকসের কাছে লেটার অব রিকোয়েস্ট (এলওআর) পাঠায়। পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে সেনা ও বিমান বাহিনীর জন্য ড্রোনের একটি নন-মেরিটাইমস সংস্করণও চাওয়া হয়।

গার্ডিয়ান হলো প্রিডেটর বি-এর মেরিটাইম ভার্সন। এর পেটের নিচে একটি রেথেওন সিভুয়ে মাল্টিমোড মেরিটাইম রাডার সংযুক্ত রয়েছে, যা বিস্তৃত এলাকার তথ্য ও উপাত্ত সরবরাহ ও নজরদারি করতে পারে।

প্রিডেটর বি একটানা ২৭ ঘন্টা উড়তে পারে। এর গতি ২৪০ কেটিএএস। এটি ৫০,০০০ ফুট উঁচুতে উঠতে পারে। এর পেলোড ক্যাপাসিটি ৩,০০০ পাউন্ড।

ভারত যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কমিউনিকেশন ফ্রেমওয়ার্ক সই না করায় গত দুই বছর ধরে এই চুক্তি ঝুলে ছিলো। তবে ভারত গত সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কমিউনিকেশন্স কমপ্যাটিবিলিটি এন্ড সিকিউরিটি এগ্রিমেন্ট (কমকাসা) চুক্তি সই করলে দুই দেশের মধ্যে ড্রোন বিক্রি চুক্তি নিয়ে আলোচনা জোরদার হয়।

ভারতের প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী ড. সুভাষ ভামরে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে পার্লামেন্টকে জানিয়েছিলেন যে: প্রিডেটর ‘বি’ সি গার্ডিয়ানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা দফতরের কাছে রিকোয়েস্ট ফর ইনফরমেশন (আরএফআই) পাঠানো হয়েছে। এখন উত্তরের জন্য অপেক্ষা করা হচ্ছে।

এই চুক্তিতে ভারতকে গুরুত্বপূর্ণ প্রযুক্তি হস্তান্তরের কথা নেই বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

Share this post

PinIt
scroll to top
bedava bahis bahis siteleri
bahis siteleri