পেকুয়ায় অন্ত:স্বত্তা মহিলাকে পেটাল দুবৃর্ত্তরা

hamla-women.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(৩১ মে) :: পেকুয়ায় অন্ত:স্বত্তা মহিলাকে পেটাল দুবৃর্ত্তরা। তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

৩১ মে (শুক্রবার) দুপুর ১ টার দিকে উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বামুলাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত মহিলার নাম জন্নাতুল ফেরদৌস (২০)। তিনি ওই এলাকার আলমগীরের স্ত্রী । ৩ মাসের অন্ত:স্বত্তা বলে নিশ্চিত করেছেন ওই গৃহবধূর স্বজনরা।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্র জানায়, ওই দিন দুপুরে একদল দুবৃর্ত্তরা লাঠি সোটা ধারালো দা, কিরিচ নিয়ে বামুলারপাড়ার আনছারের বাড়িতে হানা দেয়। এ সময় তারা আনছারের বসতবাড়ির সংলগ্ন একটি অগভীর পুকুরে ধারিয়া পুঁতে দিচ্ছিলেন। পুকুরটি জবর দখলে নিতে সেখানে গাছের ঝাক পুতে দেয়।

এ সময় আনছারের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী জন্নাতুল ফেরদৌস পুকুরটি জবর দখল না করতে বারণ করছিলেন।

এ সময় একই এলাকার শফি আলম, কালা মিয়া, মনির আলম, নবী আলম, কামালসহ ৭/৮ জনের দুবৃর্ত্তরা জন্নাতুল ফেরদৌসকে কিল, ঘুষিসহ তলপেটে লাথি মেরে পানিতে ফেলে দেয়। তারা ওই নারীকে স্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করতে গলা ছেপে ধরে।

এ সময় তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। জন্নাতুল ফেরদৌসের ভাসুর আনছার জানায়, আমি বাড়িতে ছিলাম না। এলাকার বাইরে ছিলাম। এ সুবাধে আমার বসতবাড়ির সংলগ্ন জায়গাটি জবর দখল করার পায়তারা করে।

জন্নাতুল ফেরদৌসের শাশুড়ী আছিয়া বেগম জানায়, পুত্রবধূর তলপেটে লাথি মেরেছে। প্রচুর রক্তক্ষরন হয়েছে। হাসপাতালে ছটপট করছে। আনছারের স্ত্রী হাছিনা বেগম জানায়, আমরা তিন নারীকে তারা হামলা চালায়। ছোট ভাবীকে তলপেটে লাথি মারে। তিন মাসের অন্ত:স্বত্তা।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri