এটিএম হ্যাক : বুথে টাকার সংকট

jal_taka-atm.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৩ জুন) :: ব্যাংকিং খাতে নগদ তারল্য সংকটের প্রভাব পড়েছে অটোমেটেড টেলার মেশিন বা এটিএম বুথে। নগদ টাকার সংস্থান করতে না পারায় বেশির ভাগ ব্যাংকই এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখতে পারেনি। ফলে ৩ জুন বিকালেই বেশির ভাগ এটিএম বুথে টাকার সংকট শুরু হয়। নিজ ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা না পেয়ে গ্রাহকরা ছোটেন অন্য ব্যাংকের বুথে। রাজধানী থেকে শুরু করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ৩ জুন এ পরিস্থিতি ছিল।

এটিএম বুথে টাকার সংকটের বিষয়টি স্বীকার করছেন ব্যাংকগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালকরাও (এমডি)। এ বিষয়ে কথা হয় দেশের প্রথম সারির ছয়টি বেসরকারি ব্যাংকের এমডির সঙ্গে। তারা বলছেন, টানা তিনদিন ছুটি শেষে ৩ জুন অফিস খুলেছে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ব্যাংকগুলোর বেশির ভাগ কর্মীই ছুটিতে চলে গেছেন। অন্যরাও আছেন ছুটির মুডে। এজন্য অনেক এটিএম বুথে নতুন করে টাকা রাখা সম্ভব হয়নি। পাশাপাশি ব্যাংকগুলোর হাতে নগদ তারল্য সংকটও ছিল। গত কয়েক দিনে ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার চেয়ে গ্রাহকরা অনেক বেশি তুলেছেন। ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম হ্যাক হওয়ার ঘটনায় অন্য ব্যাংকগুলো নতুন করে টাকা রাখার ঝুঁকি নেয়নি।

রাজধানীর মিরপুরের বাসিন্দা আফসারুল হক জানান, ৩ জুন সন্ধ্যায় টাকা তোলার জন্য অন্তত ১০টি ব্যাংকের এটিএম বুথ ঘুরতে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত একটি ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা তুলেছি।

শুধু রাজধানী নয়, বরং সারা দেশেই এটিএম বুথে টাকা না থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে।৩ জুন যশোরের বেশির ভাগ ব্যাংকের এটিএম বুথে টাকা পাওয়া যায়নি।

শহরের বেজপাড়া তালতলা এলাকার তৌহিদুর রহমান বলেন, ব্র্যাক ব্যাংকের শাখার নিচের এটিএম বুথ থেকে টাকা বের হচ্ছে না। ব্যাংকের অন্য বুথগুলোর অবস্থাও একই। সাজেদ রহমান নামে আরেক গ্রাহক বলেন, প্রাইম ব্যাংক ও প্রিমিয়ার ব্যাংকের বুথে টাকা পাওয়া যায়নি। বুথের শাটার নামিয়ে বন্ধ রাখা হয়েছে। যশোর শহরের বেশির ভাগ ব্যাংকের এটিএম বুথের পরিস্থিতি একই রকম।

সাউথইস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম কামাল হোসেন বলেন, টানা তিনদিন ছুটির পর ৩ জুনঅফিস খুলেছে। আজ থেকে আবারো ঈদের ছুটি। ব্যাংকের অনেক কর্মী ছুটিতে চলে গেছেন। এজন্য এটিএম বুথে টাকার সংকট হতে পারে। এছাড়া ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথ হ্যাক হওয়ার ঘটনায় অন্যদের মধ্যেও আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। অনেকেই নতুন করে বুথে টাকা রাখার ঝুঁকি নিতে চাইছেন না।

গত শনিবার রাতে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের তালতলা এলাকায় ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথের সিস্টেম হ্যাক করে টাকা তুলে নেয়ার সময় ইউক্রেনের নাগরিক দেনিস ভিতোমস্কিকে গ্রেফতার করা হয়। পরে আসামি দেনিস ভিতোমস্কিকে সঙ্গে নিয়ে হোটেল ওলিও ড্রিম হ্যাভেন থেকে গ্রেফতার করা হয় আরো পাঁচজনকে। অভিনব পন্থা ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের বুথ থেকে এ বিদেশীরা টাকা বের করে নেন। এ ঘটনার পর থেকেই দেশের সব ব্যাংকের এটিএম বুথে বাড়তি সতর্কতা জারি করা হয়। ব্যাংকগুলো নিজ উদ্যোগেই নিরাপত্তা বাড়িয়েছে।

ডাচ্-বাংলা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ রোববার রাতে সারা দেশে এটিএম বুথ বন্ধ করে দেয়। বুথ থেকে টাকা বের করে গণনা করে হিসাব মেলানো হয়। একইভাবে রাতেও ব্যাংকটির সব এটিএম বুথ বন্ধ রাখা হয়। আগামী কয়েক দিন এ অবস্থা থাকবে বলে ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কাশেম মো. শিরিন বণিক বার্তাকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, দেশে এটিএম বুথকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ধরনের জালিয়াতি হয়েছে। কিন্তু এবারের জালিয়াতিটি সম্পূর্ণ ভিন্ন প্রকৃতির। এটিএম বুথের হিসাবে কোনো এন্ট্রি ছাড়াই টাকা বের করে নেয়া হয়েছে।

আশার কথা হলো, অল্প ক্ষতির পরই আমরা জালিয়াত চক্রটিকে ধরতে পেরেছি। ৬ জুন চক্রটির ভারতে যাওয়ার ভিসা ছিল। তারা হয়তো সেখানেও জালিয়াতি করত।

Share this post

PinIt
scroll to top
alsancak escort bornova escort gaziemir escort izmir escort buca escort karsiyaka escort cesme escort ucyol escort gaziemir escort mavisehir escort buca escort izmir escort alsancak escort manisa escort buca escort buca escort bornova escort gaziemir escort alsancak escort karsiyaka escort bornova escort gaziemir escort buca escort porno