পানি কখন কতটুকু খেতে হয় ?

WATER-wmn.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৭ জুলাই) :: মানুষের সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পানি পানের বিকল্প নেই। আমাদের শরীরে প্রায় তিন ভাগের দুই ভাগ পানি। পানি বিষয়ক কয়েকটি প্রশ্ন আমাদের মনে প্রায়ই ঘোরপাক খায়, সারা দিনে কতটুকু পানি পান করব? কখন বেশি আর কখন কম পানি পান করা উচিত?

এদিকে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পর্যাপ্ত পানি পানের যেমন সুফল আছে, তেমনি অপর্যাপ্ত পানি পানের কারণে নানা সমস্যায়ও পড়তে হয়। চলুন, পানি পানের বিভিন্ন দিক নিয়ে সবিস্তারে আলোচনা করা যাক-

দিনে কতটুকু পানি পান করবেন

প্রাপ্তবয়স্ক ও কর্মক্ষম নারী-পুরুষের প্রতিদিন দুই থেকে তিন লিটার পানি পান করা জরুরি। তবে দিনে কতটুকু পানি পান করতে হবে, তা মূলত আবহাওয়া ও শারীরিক শ্রমের ওপর নির্ভর করে। আবহাওয়ার কারণেই শীতকালের চেয়ে গরমকালে শরীরে পানির চাহিদা বেড়ে যায়। আর যারা কায়িক পরিশ্রম বেশি করেন, তাদের বেশি পানি পান করতে হবে।

এছাড়া যারা স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি ঘামেন, তাদের জন্য একটু বেশি পানি পান করা জরুরি। অনেকের মতে, সকালে খালি পেটে অনেক পানি পান শরীরের জন্য ভালো। এর সুনির্দিষ্ট বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই। তবে কিছু শারীরিক সমস্যায় এটি উপকার দেয়। কিন্তু সাধারণভাবে যখনই পানির তৃষ্ণা লাগবে, তখনই পানি পান করে শরীরের ঘাটতি মেটানো উচিত।

পর্যাপ্ত পানি পানের সুফল

পর্যাপ্ত পানি পান করলে কিডনি, যকৃৎ, হৃৎপিণ্ড ও মস্তিষ্ক ভালো থাকে। রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। পানি শরীরের ভেতরের কোষগুলোকে সবল ও স্বাভাবিক রাখে। তবে অবশ্যই বিশুদ্ধ পানি পান করতে হবে। কেননা পানি বিশুদ্ধ না হলে ডায়রিয়া, কলেরা ও টাইফয়েডের মতো পানিবাহিত রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। কমপক্ষে আধঘণ্টা ভালো করে ফুটিয়ে এরপর ঠান্ডা করলে পানি জীবাণুমুক্ত হতে পারে। অথবা সঠিক পদ্ধতিতে ফিল্টার করেও পানি পান করা যেতে পারে। বাজারের বোতল পানি পানের ক্ষেত্রে দেখেশুনে নিতে হবে।

অপর্যাপ্ত পানি পানের সমস্যা

পর্যাপ্ত পানি পান না করলে শরীরে অনেক সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। রক্তচাপ কমে যেতে পারে। এ থেকে শরীরে রক্ত চলাচল কমে আসা এবং কিডনি অকেজো হওয়ার আশঙ্কাও থাকে। নারীদের মধ্যে অনেকে অনেক সময় প্রয়োজনের তুলনায় কম পানি পান করেন। বিশেষ করে যাদের বিভিন্ন কাজে বাইরে যান, তাদের মধ্যে এই প্রবণতা বেশি। এর প্রধান কারণ আমাদের শহর-নগরে পর্যাপ্ত ও ভালো পাবলিক টয়লেট না থাকা। আর পানি কম পান করায় তাদের ইউরিন ইনফেকশন এবং কিডনির জটিলতাও বৃদ্ধি পায়। তাই দিনের বেলায় এই পানির ঘাটতি মেটাতে ঘরে ফিরে বেশি করে পানি পান করা উচিত।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri