buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort

কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালানো ১৩ রোহিঙ্গা আটক

comilla-rohinga.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(১৭ জুলাই) :: কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালানো নারী শিশুসহ ১৩ রোহিঙ্গাকে কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া থানা পুলিশ এলাকাবাসীর সহায়তায় আটক করেছে। তাদেরকে বৃহস্পতিবার কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রেরণ করা হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাতে শশীদল পাঁচপীরের মাজার এলাকা থেকে নারী, পুরুষ এবং শিশুসহ ১৩ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে আটক করে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। আটককৃত রোহিঙ্গারা কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালিয়ে আসার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে।

আটককৃতরা হল-  ইয়াকুব নবীর ছেলে হাবিববুল্লাহ্ (৩৮), হাবিববুল্লাহর স্ত্রী রাজুমা (২৭), হাবিববুল্লাহর ছেলে মোঃ সোহেল (৯), আশ্রাফ(৭), ছমির (৪), হাবিববুল্লাহর মেয়ে তাসলিমা(২), ছমিয়া (১), মৃত নূর আহাম্মদের ছেলে ইমাম হোসেন(৭৭), ইমাম হোসেনের স্ত্রী আছিয়া খাতুন(৫৬), ইমাম হোসেনের মেয়ে মনোয়ারা (২২), রাজুমা(২০), মৃত নূর আহাম্মদের ছেলে সৈয়দ আলম(২৫), মৃত ইব্রাহীমের ছেলে হামিদ হোসেন(২৫)।

থানার ওসি এসএএম শাহজাহান কবির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বৃহস্পতিবার আটককৃত রোহিঙ্গা শরনার্থীদের কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের মাধ্যমে কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশি পাসপোর্টে রোহিঙ্গাদের বিদেশ পাচার,আটক ১০

মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের বিদেশে পাঠাচ্ছে একটি চক্র। চক্রটি কৌশলে ক্যাম্প থেকে বিদেশ যেতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের বের করে আনে। তাদের জন্য ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে তৈরি করা হয় বাংলাদেশি পাসপোর্ট। আর সেই পাসপোর্ট ব্যবহার করেই মালয়েশিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে রোহিঙ্গাদের পাচার করে আসছিল।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে রোহিঙ্গাদের বিদেশে পাচারকারীচক্রের ১০ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১০)।

আটককৃতরা হলেন- জাহাঙ্গীর আলম (৫২), মানিক (৪৫), রানা (৩৪), হুমায়ুন কবির (৪৩), আল-মামুন (৩৫), কাজী মাহফুজুর রহমান মাসুদ (৪০), ফারুক মিয়া (২৫), গৌরাঙ্গ সরকার (২৫), কাকলী (৩৫) ও বাবুল (৪০)।

এ সময় মুশফেকা (১৯), নুর বেগম (৪৮) ও সান্ত্বনা (১৩) নামে তিন ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে মুশফেকা ও নুর বেগম রোহিঙ্গা নাগরিক।

র‌্যাব-১০ এর উপ-অধিনায়ক মেজর মো. আশরাফুল হক জানান, ১৭ জুলাই রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন হাসনাবাদ বড় মসজিদ সংলগ্ন পাগলা হোসেনের বাড়ি থেকে পাচারকারীচক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। পরে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রাজধানীসহ এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় অভিযান চালিয়ে রোহিঙ্গা নাগরিক পাচারকারীচক্রের ১০ সদস্যকে আটক করা হয়।

তিনি বলেন, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গা নাগরিকদের প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে ক্যাম্প থেকে বের করে আনত। এরপর ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে বাংলাদেশি পাসপোর্ট তৈরি করে বিদেশে পাচার করে আসছিল। রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি বাংলাদেশি নাগরিকদেরও মালয়েশিয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে পাচার করা হতো।

আটকদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ পাসপোর্ট, মোবাইল, নগদ টাকা ও চেকবই উদ্ধার করা হয়েছে। আটকদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় একটি মানবপাচার মামলা দায়েরপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri