উখিয়ায় বন্দুক যুদ্ধে রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারী নিহত : অস্ত্র গুলি ইয়াবা উদ্ধার

arms-fight-cross-dead-1.jpg

শহিদুল ইসলাম,উখিয়া(৫ আগস্ট) ::কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের রেজুখাল যৌথ চেকপোষ্টের একটি টহল দল সোমবার ভোরে উখিয়ার জালিয়া পালং ইউনিয়নের রুপপতি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সন্নিকটে মেরিন ড্রাইভ সড়ক নামক স্থানে চোরাচালান বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে কক্সবাজারগামী ১টি মোটর সাইকেলকে চ্যালেঞ্জ করলে মোটর সাইকেলে থাকা আরোহীগণ বিজিবি টহল দলকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষণ করতে থাকে।

তখন বিজিবিও জান-মাল, অস্ত্র ও গোলাবারুদ রক্ষার্থে গুলি ছুড়ে, উভয় পক্ষের গোগোলাগুলিতে এক ইয়াবা ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি’র অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ আনোয়ার হোসেন মজুমদার বলেন , গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির সদস্যরা গাড়ী গতিরোধ করে তল্লাশী করতে চাইলে ইয়াবা বহণকারী গুলি বর্ষন করতে থাকে। কৌশল গত অবস্থান নিয়ে বিজিবি তাদের জান-মাল, অস্ত্র ও গোলাবারুদ এবং সরকারী সম্পদ রক্ষার্থে পাল্টা গুলি শুরু করে।

উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় ১০-১২ মিনিট গুলি বিনিময় হয়। অতঃপর স্থানীয় লোকজন গোলাগুলির শব্দ শুনে ঘটনাস্থলের দিকে আসতে শুরু করলে স্থানীয় লোকজনের জান-মালের ক্ষতি সাধন রোধকল্পে বিজিবি’র টহল দল গুলিবর্ষণ বন্ধ করে। এক পর্যায়ে অজ্ঞাতনামা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা গুলি করতে করতে মোটর সাইকেল যোগে পালিয়ে যায়।

বিজিবি টহল দল ইনানী পুলিশ ফাঁড়িকে ঘটনাটি দ্রুত অবগত করলে উক্ত পুলিশ ফাঁড়ির একটি টহল দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্থানীয় জনসাধারণকে সহযোগিতায় ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

পরে জানা যায়, সে উখিয়া কুতুপালং ক্যাম্প-৭ ব্লক-ই-১ এর আশ্রিত রোহিঙ্গা মোহাম্মদ আলীর ছেলে মোঃ আইয়ুব (২২)। মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মংডু থানার বাসিন্দা। এসময় তার নিকট থেকে ১টি দেশীয় তৈরী বন্দুক, ২ রাউন্ড খালি কার্তুজ এবং ২৯৫০পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয় বলে বিজির এই কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল মনসুর জানান, লাশটি ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
bahis siteleri