কক্সবাজারের মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও স্বাচিপ নেতা ডা. রেজাউল করিমের বদলি আদেশ বাতিল

rk.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(১১ আগস্ট) :: নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজাকে নিয়ে ‘আপত্তিকর মন্তব্য’ করা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) শিশু ক্যানসার বিশেষজ্ঞ এবং কক্সবাজারের মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও সাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ(স্বাচিপ) কক্সবাজার জেলা শাখার সাবেক সাধারন সম্পাদক এ কে এম রেজাউল করিমের বদলি আদেশ বাতিল করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) এই আদেশ জারি করে।

বদলি বাতিল বিষয়ে শুক্রবার (১০ আগস্ট) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের শিশু, হেমাটোলজি ও অনকোলজি বিভাগের অধ্যাপক এ কে এম রেজাউল করিম বলেন, ‘বদলি আদেশের ব্যাপারে জানার পরে মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা ফোন করে দুঃখ প্রকাশ করেন। বদলির বিষয়ে তিনি কিছু জানতেন না বলেও জানান।

তিনি এই বদলি আদেশের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে পদক্ষেপ নিবেন বলেন আশ্বাস দিয়েছিলেন। গতকাল বদলি আদেশ বাতিল হয়েছে আর এ জন্য মাশরাফি, গণমাধ্যমসহ সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

উল্লেখ্য, ২৫ এপ্রিল মাশরাফি নড়াইল সদর হাসপাতাল পরিদর্শনে যান। সেখানে গিয়ে চারজন চিকিৎসককে অনুপস্থিত পেয়েছিলেন তিনি। এ সময় মাশরাফির হাসপাতাল পরিদর্শনের ভিডিও চিত্রটি ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। শুরু হয় পক্ষে-বিপক্ষে নানা আলোচনা ও সমালোচনা।

এরই প্রেক্ষিতে অধ্যাপক এ কে এম রেজাউল করিম নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্ট থেকে মাশরাফি সম্পর্কে একটি মন্তব্য করেন ২৮ এপ্রিল।

এরপরেই অধ্যাপক এ কে এম রেজাউল করিমকে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজে বদলি করার আদেশ জারি করা হয়। তিনি সেখানে যোগদান না করলে গত ৬ জুন তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়।

আদেশ হওয়ার পরেও বদলি করা স্থানে যোগদান না করা বিষয়ে অধ্যাপক এ কে এম রেজাউল করিম জানান, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু ক্যানসারের সেবা দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তাই তিনি সেখানে যোগ দেননি। এখন সেই বদলি আদেশ বাতিল হওয়ায় তিনি চমেকেই সেবা দিতে পারবেন বলে জানান।

এর আগে অধ্যাপক এ কে এম রেজাউল করিমকে বদলি আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে ৪ জুলাই চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের রোগী ও তাদের স্বজনেরা।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri