কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে মিলল নিখোঁজ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের মৃতদেহ

beach-2-dead-university.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(১১ আগস্ট) :: কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবনী পয়েন্টে শনিবার সকালে গোসল করতে নেমে স্রোতের টানে ভেসে যাওয়া রুয়েটের শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলামের (২০) মৃতদেহ ২২ ঘন্টা পর উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কক্সবাজার শহরের নাজিরারটেক পয়েন্ট থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

এরআগে শনিবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে সমুদ্র সৈকতের কবিতা চত্তর থেকে নিখোঁজ রফিক আহমদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তাঁর বাড়ি কক্সবাজার পৌরসভার ঘোনারপাড়ায়।সে চট্টগ্রামের ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন।

ঈদের ছুটিতে তাঁরা কক্সবাজারে এসেছিলেন।

রোববার সকালে উদ্ধার হওয়া আরিফুল ইসলাম কক্সবাজার শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ারছরা এলাকার বাসিন্দা সৌদি প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে এবং রাজশাহী ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজির (রুয়েট) কম্পিউটার সাইয়েন্সের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র।

ট্যুরিস্ট পুলিশের পুলিশ সুপার মো: জিল্লুর রহমান নিখোঁজ দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় নিহত দুই বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রদের পরিবার, বন্ধু মহল এবং এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জানা যায়,১০ আগস্ট শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে আরিফুল ইসলামসহ ৫ বন্ধু কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের বালিয়াড়িতে ফুটবল খেলে সমুদ্রে গোসল করতে নামলে ৫ জনই উত্তাল সমুদ্রের ভাটার ঠানে ভেসে যায়।

পরে আহমেদ কাদের, ইমরুল শাহেদ ও মোবাশ্বেরুল ইসলামকে লাইফগার্ডের কর্মীরা উদ্ধার করলেও রফিক মাহমুদ (২১) ও রুয়েটের ছাত্র আরিফুল ইসলাম (২০) নিখোঁজ হয়ে যান।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র নিখোঁজের ঘটনা শোনে সৈকতে হাজির হন জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন, টুরিস্ট পুলিশের এসপি মো. জিললুর রহমানসহ অনেকে। তাঁরা দীর্ঘক্ষণ সৈকতে নিখোঁজদের অনুসন্ধান কার্যক্রম তদারক করেন।

জেলা প্রশাসনের পর্যটন সেলের দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাখন চন্দ্র সূত্রধর বলেন, বৈরী পরিবেশের কারণে বঙ্গোপসাগর প্রচণ্ড উত্তাল আছে। উত্তাল সমুদ্রে গোসলে নামতে নিষেধ করে সৈকতে একাধিক লাল নিশানা উড়ানো হচ্ছে। তারপরও অনেকে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে উত্তাল সমুদ্রে নেমে বিপদে পড়ছেন।

 

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri