রামু-কক্সবাজার সদরের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র পরিষদের কার্যকরী কমিটি ঘোষণা

s777.jpg

প্রেস বিজ্ঞপ্তি(৭ নভেম্বর) :: বাংলাদেশের পর্যটন রাজধানী খ্যাত কক্সবাজার জেলার রামু-কক্সবাজার সদরের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের সংগঠন রামু-কক্সবাজার ছাত্র পরিষদের প্রতি বছরের ন্যায় এই বছরও কার্যকরী কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে সভাপতি হিসেবে ঈদগাঁও এর কৃতি সন্তান সাঈদ মাহমুদ তানজিদ এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রামু’র খুনিয়াপালং এর মো. নাজমুস সাকিব দায়িত্ব পেয়েছেন।

সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতি বছর ৪র্থ বর্ষ থেকে মূল দায়িত্ব প্রবর্তিত হয়।এরই ধারাবাহিকতায় এবারও এর ব্যত্যয় ঘটেনি।২০১৮-১৯ সেশনের সাধারণ সম্পাদক সুমন দে, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আনোয়ার শাহাদাৎ, এস্তাফিজুর রহমান মুবিন এবং উপদেষ্টা এম. খোরশেদ আলম ও নাছির উদ্দিন এর অনুমতিক্রমে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হয়।

দর্শন বিভাগের কৃতি ছাত্র সাঈদ মাহমুদ তানজিদ ব্যক্তিগত জীবনে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে বিশ্বাসী। বর্তমানে জিয়া হলের আবাসিক এই শিক্ষার্থী রামু-কক্সবাজার সদরের ছাত্রদের অকৃত্রিম সহযোগিতার জন্য সমাদৃত।তানজিদ বলেন-আমাকে সভাপতির দায়িত্ব অর্পণ করায় আমি সিনিয়রদের কৃতজ্ঞতা জানাই এবং সংগঠনের শৃঙ্খলা ও অগ্রগতির জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাব।

সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পাওয়া মো. নাজমুস সাকিব স্বাস্থ্য অর্থনীতি বিভাগের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের আবাসিক ছাত্র।ব্যক্তিগতভাবে সে বিভিন্ন সামাজিক কার্যকলাপে যুক্ত।পাশাপাশি রাজনৈতিকভাবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী। কক্সবাজার জেলার প্রত্যেকের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রেখে সে সামনের চলার পথকে মসৃণ করে রাখছে।

তার মতামত জানতে চাওয়া হলে সে বলে-আমি যথাযত মূল্যায়িত হওয়ার আগামীতে যারা সংগঠনের অগ্রগতির জন্য কাজ করবে আমি তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা নিয়ে ছাত্রদের কল্যাণের জন্য কাজ করে যাব।এই সংগঠনকে নিয়মিত ছাত্রদেরকে সংগঠনে রূপ দেওয়াই আমার প্রথম লক্ষ্য।কর্তৃত্ববাদীদের অযাচিত হস্তক্ষেপের উপযুক্ত জবাব দিয়ে এই সংগঠন এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই আমার অন্যতম প্রতিজ্ঞা।

২০১৬ সালের ৫ ই ফেব্রুয়ারি থেকে অদ্যাবধি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আসছে।এরই ধারাবাহিকতা আগামীতে বজায় থাকবে এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri