চকরিয়ায় মাজারের পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধনের অভিযোগ

Chakaria-Picture-12-11-19.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া(১২ নভেম্বর) :: কক্সবাজারের চকরিয়ায় রাতের আঁধারে শাহ ডলমপীর মাজার মসজিদের পুকুরে বিষ প্রয়োগে অন্তত তিনলাখ টাকার মাছ নিধনের ঘটনা ঘটেছে। কতিপয় দুর্বৃত্ত চক্র একটি তুচ্ছ বিরোধের জেরে মাজার পুকুরে ন্যাক্কারজনক এ ঘটনাটি সংগঠিত করেছে বলে মঙ্গলবার চকরিয়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ তুলেছেন পুকুর ইজারদার মোহাম্মদ ইলিয়াছ।

এ ঘটনায় মাজার সংশ্লিষ্ট পরিচালনা কমিটি, স্থানীয় লোকজনের মাঝে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবী করেছেন। শনিবার রাতে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়ক লাগোয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের নরবিলা এলাকার ডলমপীর শাহ মাজার মসজিদ পুকুরে ঘটেছে এ ঘটনা।

পুকুরের ইজারাদার স্থানীয় ইসলামনগর এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে ইলিয়াছ সাঈদী জানান, তিনি পুকুরটি একবছর মেয়াদে মাজার মসজিদ কমিটির কাছ থেকে ইজারা নিয়ে কিছুদিন আগে মাছ চাষ করেছেন। প্রায় ৬০ শতক (দেড়কানি) পরিমাণের ওই পুকুরে চারমাস আগে এক লাখ টাকার সাদাজাতের মাছ রুই,কাতাল, মৃগেল, কার্প, স্বরপূতি, নাইলেটিকা,পাংগাস ও চিংড়ি পোনা ছেঁেড়ছেন।

ইজারাদার মোহাম্মদ ইলিয়াছ দাবি করেন, এক লাখ টাকার মাছের জন্য গত চারমাসে তিনি কমপক্ষে ২লাখ টাকার খাদ্য যোগান দিয়েছেন। বর্তমানে চার থেকে পাঁচলাখ টাকার মাছ পুকুরে মজুদ রয়েছে। ওই অবস্থায় শনিবার রাতের আধাঁরে এলাকায় আমার সঙ্গে একটি তুচ্ছ বিরোধের জেরে কতিপয় দুর্বৃত্ত চক্র পুকুরে কীটনাশকযুক্ত বিষ ছড়িয়ে দেয়।

ইজারাদারের অভিযোগ, বিষ প্রয়োগের ঘটনায় অন্তত তিন লাখ টাকার মাছ মরে গেছে। গত তিনদিন ধরে পুকুরে এসব মরা মাছ পানিতে ভেসে উঠছে, পাশাপাশি পুকুরের পানিতে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.হাবিবুর রহমান বলেন, মাজার পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধনের ঘটনায় এখনো কেউ অভিযোগ দেয়নি। তবে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে অবশ্যই তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri