রামুতে জমি জবর-দখলের উদ্দেশ্যে বসত বাড়িতে হামলা : আহত-৬

hamla-mans.jpg

সোয়েব সাঈদ,রামু(১৩ নভেম্বর) :: রামুতে জমি জবর-দখলের উদ্দেশ্য বসত বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ৬জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) সকাল ১১ টায় জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি চা বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রামু থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

হামলায় আহত হয়েছেন ওই এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য আমির হোসেনের ছেলে আবদুল হালিম।

তিনি জানিয়েছেন, নোনাছড়ি মাঝিরখিল এলাকার মো. এমরান ও  আবু তালেবের নেতৃত্বে একটি সংঘবদ্ধ ভূমিগ্রাসী চক্র দীর্ঘদিন তাদের বসত ভিটে জবর-দখলের পাঁয়তারা চালিয়ে আসছিলো।

বুধবার সকালে মো. এমরান ও শাহজালাল, আবু তালেব, বদিউর রহমানসহ ৩০/৪০ জন ভাড়াটে সন্ত্রাসী আমির হোসেনের বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট শুরু করে।

এসময় বাধা দিতে গিয়ে হামলার শিকার হন পরিবারটির ৬ সদস্য।

আহতরা হলেন, আমির হোসেনের ছেলে কলিম উল্লাহ (৩৭), আবদুল হালিম (৩৯), মেয়ে জুলেখা হোসেন (২৬), মর্জিনা হোসেন (২৪), সেলিমুল হকের স্ত্রী রোমেনা আক্তার (২৬) ও আবুল হাশিমের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৩৫)।

স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে, কক্সবাজার সদর হাসপাতাল ও অন্যান্য ক্লিনিকে নিয়ে যান। আহতদের মধ্যে কলিম উল্লাহর অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।

আহতরা জানান, হামলাকারিরা দেশীয় অস্ত্র, দা, লাটি-সোটা নিয়ে পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালায়। হামলাকারিরা নারীদের শ্লীলতাহানি করে এবং তাদের বসত বাড়ি ভাংচুর, আসবাবপত্র, মোবাইল ফোন সেট সহ বিপুল মালামাল নিয়ে যায়।

খবর পেয়ে সকালে রামু থানার এসআই ইমাম ঘটনাস্থলে যান।

এ ঘটনায় আহত আবদুল হালিম বাদি হয়ে বুধবার (১৩ নভেম্বর) বিকালে রামু থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এদিকে হামলায় আক্রান্ত গৃহকর্তা সাবেক ইউপি সদস্য আমির হোসেন জানান, এ ঘটনার পর থেকে হামলাকারিরা মামলা না করার জন্য আহতদের বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। এ কারনে তারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ ব্যাপারে তিনি পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri