দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে পরিবহণ ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা

rd.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(২০ নভেম্বর) :: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বাস, ট্রাক ও পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতির নেতাদের বৈঠক শেষ হয়েছে। টানা ৩ ঘন্টারও বেশি সময় ধরে চলা এই বৈঠক শেষে, ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন পরিবহণ নেতারা।মূলত দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসেই কর্মবিরতি প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।  তবে সেক্ষেত্রে শর্তজুড়ে দিয়েছেন পরিবহণ সেক্টরের নেতৃবৃন্দ। তাদের এসকল শর্ত সম্পর্কে এখনই বিস্তারিত কোনো তথ্য জানা যায়নি।

বুধবার (২০ নভেম্বর) দিনব্যাপী সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে- পরিবহণ মালিক-শ্রমিকদের ডাকা এই আকস্মিক ধর্মঘটের প্রেক্ষিতে রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ধানমন্ডিস্থ বাসভবনে, পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে নতুন সড়ক পরিবহন আইন স্থগিতের দাবিতে পরিবহন-মালিক শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

বৈঠক শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে দেয়া এক বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আইনে যে কয়টি ধারা নিয়ে তারা আবেদন করেছেন, সেগুলো সংশোধনের জন্য আমরা যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ আকারে পাঠাবো। আর তাদের যেসব কাগজপত্রে সমস্যা আছে, সেগুলো সংশোধন করে নেওয়ার জন্য জুন নাগাদ সময় দেয়া হয়েছে। তাদের দাবিগুলো আমরা মেনে নিয়েছি।’

এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন— বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক রুস্তম আলী খান, যুগ্ম আহ্বায়ক হাজী মুগবুল আহমেদ, সদস্য সচিব ও বাংলাদেশ আন্তঃজেলা ট্রাকচালক ইউনিয়নের সভাপতি তাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্লাহ ও বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি মো. তোফাজ্জল হোসেন মজুমদারসহ ২০ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।

ঢাকা ছাড়াও বিভিন্ন বিভাগীয় শহরের শ্রমিক-মালিক নেতারাও এতে উপস্থিত ছিলেন। উক্ত বৈঠকে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম ও বিআরটিএ’র কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন। পূর্বনির্ধারিত এই বৈঠকে যোগ দিতে রাত সাড়ে ৮টার পর থেকেই বিভিন্ন পরিবহন শ্রমিক নেতারা মন্ত্রীর বাসভবনে আসতে শুরু করেন।

এর আগে  মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) ট্রাক ও পণ্য পরিবহন শ্রমিকরা ধর্মঘটের ডাক দেন। দেশের বিভিন্ন রুটে গণপরিবহন বন্ধ রেখেছেন তারা। সেই সঙ্গে রাজধানীর বেশ কিছু এলাকায় যান চলাচলেও বাধা দেওয়া হয়।

আজকের বৈঠকের আগে গতকাল (মঙ্গলবার) রাতেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে পরিবহন শ্রমিক ও মালিকদের একটি বৈঠক হয়। তবে ওই বৈঠকে কোনও সিদ্ধান্তে আসতে পারেননি তারা। অবশেষে বুধবারের এই বৈঠকের মধ্যদিয়ে স্বস্তির আশ্বাস পেল কোণঠাসা সাধারণ মানুষ।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri