রামুর কচ্ছপিয়াতে লিঙ্গ কর্তনের ঘটনার রহস্য উম্মোচন

followup_BIG20170120154450.jpg

হাবিবুর রহমান সোহেল,নাইক্ষ্যংছড়ি(২৩ নভেম্বর) :: রামুর কচ্ছপিয়া ফাক্রির কাটা তুলাতলীতে পূর্বে শ্রত্রুতার জের ধরে মুসল্লিকে লিঙ্গ কর্তনের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এই পর্যন্ত পুলিশ এজাহের নামীয় ২ জন আসামীকে আটক করলেও বাকী অপরাধীরা ধরা ছোয়ার বাইরে বলে দাবী করেন, আহতের স্বজনরা।

তাদের দাবী, অবিলম্বে আটককৃত আসামীদের রিমান্ডে এনে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করলে বেরিয়ে আসবে থলের বিড়াল।

আহতের স্ত্রী ও ব্যবসায়ী সরোয়ার জানান, ১৮ নভেম্বর সোমবার ভোর ৫ টায় ওই এলাকার গোলাম কাদের ছেলে, মনির আহাম্মদ প্রকাশ মনু ফজরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে যাওয়ার পথে, একই এলাকার লালমিয়ার পুত্র জিয়াউর রহমান (২৩) ও বাদশাহ মিয়ার পুত্র, নুরুল আলমের নেতৃত্বে ৫/৬ জন সন্ত্রাসী মনুকে অপহরণ করে, মুখ বেধে পার্শ্ববর্তী পিয়ার মোঃ ঘোনাতেফিলিম্ম স্টাইলে তুলে নিয়ে, তার পুরুষাঙ্গ কেটে দেন।

পার্শ্ববর্তী মহিলাসহ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১২ টার দিকে, ওই মনুকে মারত্বক আহত অবস্থায় পাহাড়ের পাদদেশে দেখতে পেয়ে, তার আত্বীয় স্বজনকে খরব দিলে, তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা করা হয়।

এই ব্যাপারে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির আইসি পরিদর্শক আনিছুর রহমান জানান,এই ঘটনায় ২ জনকে আটক করে জেলে পাঠানো হয়েছে।

তাছাড়া আরো ব্যাপক তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান, পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এদিকে আহত মনু বর্তমানে ককসবাজার সদর হাসপাতালে মৃত্যু যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেন।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri