buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort

চীনে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৭২২ নাকি ২৫ হাজার ?

cvc8.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৮ ফেব্রুয়ারি) :: মারণ ভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৭২২। বেজিং সরকার তাই বলছে। যদিও কানাঘুঁষো খবর, সত্যিটা চেপে দিচ্ছে কমিউনিস্ট পার্টি। মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজারের কাছাকাছি। সংক্রমিত অন্তত দেড় লাখ। মারণ ভাইরাসটি প্রথম নজরে এসেছিল যে চিকিৎসকের, তিনিও মারা গেছেন।

সন্দেহ জোরদার হয়েছে একটি চীনা সংস্থার রিপোর্টে। তাদের দাবি, নোভেল করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৫৮৯ জনের। সরকারের বলা ‘সাড়ে পাঁচশো’র থেকে বহুগুণ বেশি।

তাইওয়ানের একটি সংস্থার কথায়, টেনসেন্ট নামে ওই সংস্থাটি অনিচ্ছাকৃতভাবে হলেও আসল মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা প্রকাশ করে ফেলেছে।

তাদের ওয়েবপেজে জানানো হয়, সংক্রমণের পরে সুস্থ হয়েছেন মাত্র ২৬৯ জন। অনেকে এখনও বিশ্বাস করছেন, টেনসেন্ট ভুল করে তাদের রিপোর্টে ওই সংখ্যাটি লিখেছে। যদিও একাংশের মতে, তারা হয়তো বাস্তব পরিস্থিতিটাকে প্রকাশ্যে আনতে চাইছে। টেনসেন্ট এখনও বিষয়টি নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি।

 চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শনিবার পর্যন্ত নতুন করে ৮৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে, যাদের ৮১ জনেই হুবেই প্রদেশের।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্বজুড়ে জরুরি স্বাস্থ্য পরিস্থিতি (হেলথ ইমার্জেন্সি) ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। অন্তত ২৫টি দেশে শনাক্ত হয়েছে এই ভাইরাস। চীনের মূল ভূখন্ডের বাইরে এতে আক্রান্ত হয়ে ফিলিপাইনে এক জন ও হংকংয়ে অপর একজনের মৃত্যু হয়েছে।

প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শরীরে প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে শ্বাসকষ্ট, জ্বর, সর্দি, কাশির মত সমস্যা দেখা দেয়। ভাইরাসটি যাতে ছড়িয়ে না যায়, সেজন্য হুবেই প্রদেশকে পুরো দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে চীন। ওই অঞ্চলের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে চীনসহ বাইরের বিশ্ব থেকে।

হুবেই প্রদেশের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, হুবেইতে নতুন করে ২ হাজার ৮৪১ জন আক্রান্তের খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ নিয়ে প্রদেশটিতে নিহত হয়েছে ৬৯৯ জন, আক্রান্ত হয়েছে ২৪ হাজার ৯৫৩ জন। এছাড়া এই প্রদেশের রাজধানী উহানে নতুন করে একদিনে ১ হাজার ৯৪৫ আক্রান্ত হয়েছে।

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ৬৭ কোটি ৫০ লাখ ডলার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন ডব্লিউএইচও মহাপরিচালক টেড্রোস অ্যাডহানম গেব্রিয়াসাস। বহু দেশেই করোনা ভাইরাস শনাক্তের পদ্ধতি না থাকাই বড় দুশ্চিন্তার কারণ বলে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভাইরাসে আক্রান্তদের শনাক্ত, পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং তাদের সেবা নিশ্চিতে দুর্বল স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি মানুষ থেকে মানুষে ছড়ানো ঠেকাতে সহায়তা দেওয়া প্রয়োজন।’

চীন জানায়, তাদের দেশে রয়েছে এমন ১৯ জন বিদেশির শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঘটেছে। তারা কোনও দেশের বাসিন্দা, প্রকাশ করা হয়নি। বুধবার (৫ ফেব্রুয়ারি) ৭৩ জন মারা গিয়েছেন। একদিনে এতো মৃত্যু এর আগে হয়নি।

ভারতসহ একাধিক রাষ্ট্র নিজেদের দেশের বাসিন্দাদের চীন থেকে এয়ারলিফ্ট করে নিয়ে এসেছে। ভারত নিজেদের ৬৪৫ জনকে উদ্ধার করেছে। কিন্তু এখনও ১০০ জন ভারতীয় হুবেই প্রদেশে রয়েছে। তাদের মধ্যে ১০ জনকে আনা যায়নি, কারণ প্রবল জ্বর ছিল তাদের। ফলে চীনের ঘোষণায় আশঙ্কা দানা বেঁধেছে। আক্রান্ত ১৯ জন বিদেশির মধ্যে কি তবে কোনও ভারতীয়ও রয়েছে?

চীনের এই পরিস্থিতিতে এয়ার ফ্রান্স-কেএলএম জানায়, চীনে বিমান পরিষেবা ১৫ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এয়ার ইন্ডিয়া, ইন্ডিগোসহ একাধিক ভারতীয় উড়ান সংস্থাও চীনের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ রেখেছে।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri