buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort

অস্ট্রেলিয়ার ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ “বিগ ব্যাশ“ চ্যাম্পিয়ান সিডনি সিক্সার্স

sixers.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(৯ ফেব্রুয়ারি) :: সাত বছরের প্রতীক্ষার অবসান। ২০১১-১২ প্রথম সংস্করণের পর ২০১৯-২০ নবম সংস্করণ। অস্ট্রেলিয়ার ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ বিগ ব্যাশে দ্বিতীয় বার খেতাব ঘরে তুলল সিডনি সিক্সার্স। বৃষ্টি-বিঘ্নিত মেগা ফাইনালে শনিবার সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে মেলবোর্ন স্টার্সকে ১৯ রানে হারাল মোসেস হেনরিকসের দল। টানা দ্বিতীয়বার হ্যান্ডশেকিং দূরত্ব থেকে খেতাব হাতছাড়া করতে হল মেলবোর্ন স্টার্সকে।

বৃষ্টির ভ্রুকুটি এড়িয়ে শনিবার সিডনিতে হাইভোল্টেজ ফাইনালের ওভারসংখ্যা কমে দাঁড়ায় ১২-তে। টস জিতে ঘরের মাঠে সিক্সার্সকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে ডেকে পাঠান মেলবোর্ন স্টার্স অধিনায়ক গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। জেমস ভিন্স ব্যর্থ হলেও ব্যাট হাতে সিডনিতে ঝড় তোলেন আরেক ওপেনার জোশ ফিলিপ। ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় ২৯ বলে বিধ্বংসী ৫৮ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংস আসে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের থেকে।

১২ বলে ২১ রান করে ম্যাক্সওয়েলের শিকার হন স্টিভ স্মিথ। অধিনায়ক হেনরিকস (৭), ড্যানিয়েল হিউজেস (০) সফল হতে না পারলেও ১৫ বলে ২৭ রানের ‘ক্যামিও’ ইনিংস খেলেন জর্ডন সিল্ক। ২টি করে উইকেট নেন অ্যাডাম জাম্পা ও অধিনায়ক ম্যাক্সওয়েল। একটি উইকেট ড্যানিয়েল ওরালের। স্টারের হয়ে ৩ ওভারে সর্বোচ্চ ৩৬ রান খরচ করেন পাক পেসার হ্যারিস রাউফ।

১১৭ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাতে নামে মেলবোর্ন। কিন্তু শুরুতেই চলতি টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহক মার্কাস স্টোইনিসের উইকেট খুঁইয়ে বসে স্টার্স। রানের খাতা না খুলেই ফিরে যান আরেক ওপেনার ক্রিস ম্যাডিনসন। রানের চাপে নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট খোয়াতে থাকে গতবারের রানার্সরা। অধিনায়ক ম্যাক্সওয়েল ৫, পিটার হ্যান্ডসকম্ব ৬, বেন ডাঙ্ক ১১, সেব গোচ ফিরে যান ব্যক্তিগত ৮ রানে। খেতাব ক্রমশ ফিকে হতে থাকে মেলবোর্নের জন্য। ২৬ বলে ৩৮ রান করে নিক লারকিন একদিক সামলে রাখলেও তাঁকে সঙ্গ দেওয়ার মত ছিলেন না কেউই।

ফল যা হওয়ার তাই হয়। শেষদিকে ন্যাথান কুল্টার নাইল ৮ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থাকলেও ১২ ওভারে ৯৭ রানেই থেমে যায় মেলবোর্নের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলটির ইনিংস। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য দলের খেতাব জয় নিশ্চিত করেন ন্যাথান লায়ন, জোস হ্যাজেলউড, স্টিভ ও’ক্যাফেরা। সর্বোচ্চ ২টি করে উইকেট নেন লায়ন ও ক্যাফে। পার্থ স্কর্চার্সের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে বিগ ব্যাশে দ্বিতীয়বার শিরোপা জয়ের নজির গড়ল সিক্সার্স।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri