buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort

চ্যাম্পিয়নস লিগে ২ বছরের জন্য ম্যানচেষ্টার সিটিকে নিষিদ্ধ করল উয়েফা

manchester-city.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১৪ ফেব্রুয়ারি) :: লাইসেন্স সংশ্লিষ্ট ও ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লের নিয়ম ভঙ্গের দায়ে ইউরোপীয় ক্লাব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফার (দ্য ইউনিয়ন অব ইউরোপিয়ান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন) ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটিকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে তাদেরকে ৩০ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা করেছে উয়েফা।

২০২০-২১ ও ২০২১-২২ মৌসুমের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে ম্যানচেস্টার সিটিকে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে রায়ের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আদালতে ম্যানসিটি আপিল করার ঘোষণা দিয়েছে। ক্লাবের ভাষ্য, উয়েফার এ রায়ে তারা ‘হতাশ হলেও বিস্মিত হয়নি।’ তবে ‘অপরিপক্ব’ এ রায়ের বিপক্ষে আপিল করা হবে।

২০০ মিলিয়ন ইউরোতে ২০০৮ সালে ম্যানচেস্টার সিটি কিনে নেয় আবুধাবি ইউনাইটেড গ্রুপ। এরপর থেকে আমিরাতভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির বিরাট অঙ্কের অর্থ লগ্নিতে আমূল বদলে যেতে শুরু করে ইংলিশ ক্লাবটি। অবকাঠামোগত উন্নয়ন থেকে শুরু করে তারকা ফুটবলার, হেভিওয়েট কোচে ইউরোপীয়ান ফুটবলের এলিট কাতারে ঠাঁই করে নেয় ম্যানচেস্টারের প্রতিনিধিরা। দেদারসে টাকা খরচ করতে গিয়ে উয়েফার নজরে পড়েছে দুনিয়াজোড়া জনপ্রিয় ক্লাবটা। ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত প্রয়োজনীয় তথ্য উয়েফাকে দিতে ব্যর্থ হয়েছে সিটি। ক্লাবটির বিরুদ্ধে লভ্যাংশ নিয়ে ভুল তথ্য দেয়ায় এবং তদন্তে সহায়তা না করার অভিযোগ এনেছে উয়েফা।

ক্লাব নিবন্ধন ও আর্থিক সংগতি নীতিতে সিটি ‘মারাত্মক আইন লঙ্ঘন করেছে’ বলে মনে করে উয়েফা। ২০১২ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে সিটির স্পনসরশিপ রাজস্ব থেকে আয়কৃত আর্থিক হিসেবে গড়মিল পেয়েছে উয়েফার আর্থিক সংগতি নীতি নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এ নিয়ে তদন্তকাজেও ক্লাবটি ‘সহায়তা করেনি’ বলে জানিয়েছে তারা। দীর্ঘ অনুসন্ধান শেষে ইউরোপের সকল আসরে ম্যানসিটিকে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রায় দেয় উয়েফার ক্লাব ফিন্যান্সিয়াল কন্ট্রোল বডি।

রায়ে বলা হয়েছে, ২০১২ থেকে ১৬, চার বছরে ক্লাবের আয় বাড়িয়ে দেখিয়েছেন ক্লাব চেয়ারম্যান খালদুন আল মোবারাক। স্পন্সর রেভিনিউয়ের নাম করে আয় বহির্ভূত সে অর্থ ক্লাবের পেছনে ব্যয় করেছে ম্যানসিটি। যা উয়েফার আর্থিক স্বচ্ছতা আইনের স্পষ্ঠ লঙ্ঘন।

উয়েফার এমন শক্ত অবস্থানে নড়েচড়ে বসেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগও। তাদের তদন্তে কোনো গোলমাল ধরা পড়লে কেটে রাখা হতে পারে ম্যানসিটির ইপিএল পয়েন্ট। নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর থেকেই ক্লাবের ভবিষ্যত নিয়ে বিশ্লেষণ শুরু করে দিয়েছে ইংলিশ গনমাধ্যমগুলো।

এদিকে ম্যানচেস্টার সিটিকে লিগ শিরোপা তো জিতালেও কিন্তু অধরা চ্যাম্পিয়নস লিগ এখনও এনে দিতে পারেননি পেপ গার্দিওলা। তাই আক্ষেপ দূর করতে হলে যা করার এবারের মৌসুমেই করতে হবে কাতালান কোচকে।অপরদিকে বিবিসি ও ইএসপিএনের মতো প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমের দাবি, চ্যাম্পিয়ন্স লীগে খেলতে না পারলে ম্যানসিটি ছাড়তে পারেন কেভিন ডি ব্রুইন, ইলকায় গুন্দোগান সহ অন্তত ৫ তারকা ফুটবলার।

Share this post

PinIt
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri