buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

চকরিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে ৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকা জরিমানা

Pic-1Chakaria-21.03.2020.jpg

মুকুল কান্তি দাশ,চকরিয়া(২১ মার্চ) :: কক্সবাজারের চকরিয়ায় করোনা ভাইরাসকে পুঁজি করে কিছু কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা চাউল-ডাল-পিঁয়াজসহ নিত্য পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে দেয়ার অভিযোগ উঠে। এছাড়া বিপুল পরিমাণ চাউল মজুদ করে রাখে।

এমন অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২৪ ঘন্টায় চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) নেতৃত্বে পৃথক টিম উপজেলার বিভিন্ন বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন। এতে দাম কমতে থাকে দ্রব্যমূল্যের। স্বত্বি ফিরে আসে ক্রেতাদের মাঝে।

এরই ধারাবহিকতায় ২১ মার্চ শনিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত চকরিয়া পৌরশহর, উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের বানিয়াছড়া স্টেশন, ডুলাহাজারা বাজার, খুটাখালী বাজার এবং বদরখালী বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান এবং সহকারি কমিশনার (ভুমি) তানভীর হোসেনের নেতৃত্বে দুটি পৃথক টিম।

এদিন সকালে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানভীর হোসেনের নেতৃত্বে ডুলাহাজারা এবং খুটাখালী বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় মূল্য তালিকা না টাঙ্গানো এবং অতিরিক্তি দামে দ্রব্যমূল্য বিক্রি করায় ১৫টি মুদিও দোকানদারকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

পরে এদিন দুপুরে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের নেতৃত্বে বরইতলী ইউনিয়নের বানিয়ারছড়া স্টেশনের দুটি চাউলের গুদামে অভিযান চালায়। এসময় বিপুল পরিমাণ চাউল ও নিত্যপণ্য মজুত থাকতে দেখে আদালত। পরে তাদেরকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করে।

পরে ওই আদালত উপজেলার বদরখালী বাজারে অভিযান চালায়। এসময় বেশ কয়েকটি মুদির দোকানদারকে ৭৬ হাজার টাকা জরিমানা করে। এদিন সন্ধ্যার দিকে পৌরশহরের তিনটি দোকানে অভিযান চালিয়ে তাদের ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, কিছু কিছু ব্যবসায়ী করোনা ভাইরাসের সুযোগ নিয়ে দ্রব্যমূল্যেও অতিরিক্ত দাম নিচ্ছে। বিশেষ করে চাউল-ডাল ও পিঁয়াজ ব্যবসায়ীরা।

এমন অভিযোগের ভিত্তিতে শনিবার আমি ও সহকারি কমিশনার (ভুমি) নেতৃত্বে দুটি টিম উপজেলার বিভিন্ন বাজারে অভিযান চালায়। এসময় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে এসব ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মোট ৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এসময় ইউএনও ব্যবসায়ীদের নির্দেশ দিয়ে বলেন, শুধুমাত্র পাইকারী দোকানদার ছাড়া কাউকে অতিরিক্ত মালামাল বিক্রয় করা যাবেনা। সাধারণ ক্রেতাদের নিয়মিত যে রকম মালামাল ক্রয় করে সে নিয়মে মালামাল বিক্রয় করার জন্য বলেন। যারা অধিক মালামাল ক্রয় করতে চাইবে তাদেও নাম-ঠিকানা লিখে রাখার জন্যও নির্দেশ দেন তিনি।

ভ্রাম্যমানা আদালতকে সহযোগিতা করেন- চকরিয়া থানার এসআই রুহুল আমিন, চকরিয়া উপজেলা টেকনিশিয়ান এরশাদুল হকসহ থানা পুলিশের একাধিক টিম।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চকরিয়া পৌরশহরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন সহকারি কমিশনার (ভুমি) তানভীর হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ। ওইসময় বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

 

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri