buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

মার্কিন আদালতে রিজার্ভ চুরির মামলায় হারল বাংলাদেশ

bank-rsrv-cori.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(২৩ মার্চ) :: বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ‘কিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে’র বিরুদ্ধে আনা ষড়যন্ত্রের অভিযোগটি খারিজ করে দিয়েছেন নিউইয়র্কের ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট। মামলার বিবাদী প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি ব্লুমবেরি রিসোর্ট করপোরেশন ২৩ মার্চ ফিলিপাইনের পুঁজিবাজারে এ তথ্য প্রকাশ করে। প্রতিষ্ঠানটি ক্যাসিনো পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ব্লুমবেরি রিসোর্ট অ্যান্ড হোটেলস ইনকরপোরেশনের মালিক।

সিএনএন ও দেশটির ‘ইনকোয়েরার’ পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ এ খবর জানিয়েছে।

তবে মামলার ওই অভিযোগ খারিজের বিষয়টি স্বীকার করলেও আদালতের আদেশে বাংলাদেশের বিজয় হয়েছে বলে দাবি করেছে বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)।

সংস্থাটির প্রধান আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান বলেন, আমাদের শঙ্কা ছিল, সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট মামলাটি খারিজ করে দেবেন। এটি হলে আমাদের ফিলিপাইনের আদালতে গিয়ে মামলা করতে হতো। এখন নিউইয়র্কের স্ট্রেট কোর্টে মামলা করা যাবে।

তবে সিএনএন ও ইনকোয়েরার বলছে, বাংলাদেশ ব্যাংক ২০১৯ সালের ৩১ জানুয়ারি মামলাটি করেছিল। এতে ব্লুমবেরি ছাড়াও রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনসহ (আরসিবিসি) বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে আসামি করা হয়।

ব্লুমবেরি রিসোর্ট করপোরেশন ফিলিপাইনের শেয়ারবাজারে দেয়া ঘোষণায় গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট আদালতের দেয়া মতামত ও রায় উদ্ধৃত করে বলেছে, বাদীপক্ষ সংশ্লিষ্ট আইনের অধীনে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। পাশাপাশি আদালত আর মামলাটি শুনবেন না বলেও ঘোষণায় উল্লেখ করে ব্লুমবেরি।

২০১৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে জালিয়াতি করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি যাওয়ার ঘটনায় সেই দেশের আদালতে একটি দেওয়ানি মামলা করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। ফিলিপাইনের আরবিসির বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, রিজার্ভ চুরির ষড়যন্ত্রের সঙ্গে নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান জড়িত রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম বিবাদী ফিলিপাইনের ব্লুমবেরি রিসোর্ট করপোরেশন। এটি মূলত সোলেয়ার রিসোর্ট অ্যান্ড ক্যাসিনো অপারেটর ও ব্লুমবেরি রিসোর্টস অ্যান্ড হোটেল ইনকরপোরেশনের মালিক প্রতিষ্ঠান। এ ক্যাসিনোতেই রিজার্ভের চুরি যাওয়া কিছু টাকা খরচ করা হয়েছে বলে পরে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

ব্লুমবেরি রিসোর্টস করপোরেশন ২৩ মার্চ ফিলিপাইন স্টক এক্সচেঞ্জে তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের আনা অভিযোগ খারিজসংক্রান্ত নথিপত্র জমা দিয়েছে।

তারা জানিয়েছে, নিউইয়র্কের ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে দায়ের করা মামলায় ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগটি বিচারক খারিজ করে দিয়েছেন। ব্লুমবেরি রিসোর্ট তাদের নথিতে উল্লেখ করেছে, ২০ মার্চ এ রায় দেয়া হয়েছে। র্যাকেটিয়ার ইনফ্লুয়েন্সড অ্যান্ড কোরাপ্ট অর্গানাইজেশনস অ্যাক্ট বা রিকো ষড়যন্ত্র মামলা খারিজ করার জন্য বিবাদীদের যৌথ আবেদন মার্কিন আদালত মঞ্জুর করেছেন। তবে যথেষ্ট বিচারিক উপাদান না থাকা এবং ফোরাম বদলের আবেদনটি মঞ্জুর করেননি আদালত।

২০১৬ সালে নিউইয়র্কে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে বেশ কয়েকটি প্রতারণামূলক লেনদেনের মাধ্যমে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার হাতিয়ে নেয় উত্তর কোরিয়ার হ্যাকাররা। এ অর্থ চারটি ব্যাংকের মাধ্যমে লেনদেন হয়, এর মধ্যে অন্যতম ফিলিপাইনের আরবিসি। আরবিসি থেকে অর্থ উত্তোলন করে ফিলিপাইনের ক্যাসিনোয় খরচ করার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের অভিযোগ, এ অর্থ চুরিতে আরবিসি, ক্যাসিনো কর্তৃপক্ষসহ অনেক ব্যক্তির যোগসাজশ থাকতে পারে। এ কারণে নিউইয়র্কের আদালতে মামলায় আরবিসি ও ক্যাসিনো কর্মকর্তাদেরও আসামি করা হয়েছে।

এদিকে ২৩ মার্চ সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের আদালতের আদেশের বিষয়ে একটি বক্তব্য দিয়েছে বিএফআইইউ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি হিসেবে গণমাধ্যমে পাঠানো বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশন (আরসিবিসি), সোলায়ার রিসোর্ট ও ক্যাসিনো, মাইডাস রিসোর্ট ও ক্যাসিনো এবং অন্যদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়েরকৃত মামলার বিপরীতে বিবাদীদের করা আবেদন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট খারিজ করেছেন। মামলার বিষয়বস্তু সংশ্লিষ্ট কোর্টের এখতিয়ারবহির্ভূত মর্মে আরসিবিসিসহ অন্যরা যে আবেদন (মোশন টু ডিসমিস) করে, তা ‘ফোরাম নন-কনভেনিয়েন্স ডকট্রিন’ অনুযায়ী আদালত খারিজ করে দেন।

আদালতের আদেশে উল্লেখ হয়, এ চুরি নিউইয়র্কে অবস্থিত মার্কিন প্রতিষ্ঠান ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক থেকে হয়েছিল এবং সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত যে জালিয়াতির মাধ্যমে পেমেন্ট অর্ডার, বিভিন্ন করেসপনডেন্ট অ্যাকাউন্টে চুরীকৃত অর্থের লেনদেন এবং এসব অ্যাকাউন্ট থেকে দেশের বাইরে অর্থ প্রেরণ—সবই নিউইয়র্কে সংঘটিত হয়েছে।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri