buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort

করোনা নিয়ে চীন-যুক্তরাষ্ট্র পারষ্পরিক দোষারোপ : মৃতের সংখ্যায় চীনকে ছাড়ালো স্পেন

Corona-china-usa-blame.png

কক্সবাংলা ডটকম(২৫ মার্চ) :: করোনাভাইরাস মহামারির শুরু থেকেই একে অপরকে দুষছে চীন ও যুক্তরাষ্ট্র। শুরু থেকেই নতুন করোনাভাইরাসকে ‘চীনা ভাইরাস’ হিসেবে সম্বোধন করে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে বলেন, ‘উহান ভাইরাস’।

এ ধরনের মন্তব্যকে ‘বর্ণবাদী’ ও ‘জাতিগত বৈষম্য’ হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়ে প্রবল আপত্তি জানায় চীন।

মার্কিন নেতারা চীনের বিরুদ্ধে ভাইরাস নিয়ে তথ্য গোপনের অভিযোগও জানিয়েছে। সব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে চীন।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারিতে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের পারষ্পরিক দোষারোপের মধ্যেই ইউরোপের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে চীনের।

চীনের বার্তাসংস্থা শিনহুয়ার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সোমবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাখোঁর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ।

শি’র বরাত দিয়ে চীনের বার্তাসংস্থা শিনহুয়া জানায়, সীমান্ত কিংবা জাতি নির্বিশেষে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস। প্রয়োজনীয় সামগ্রীর জন্য বাণিজ্য যোগাযোগ উন্মুক্ত রেখে চীন ও ব্রিটেনের উচিৎ একসঙ্গে কাজ করা। গোটা মানবজাতির এখন মানবতার স্বার্থে একত্রিত হওয়া প্রয়োজন। এসময় করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যুক্তরাষ্ট্রকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি। ভাইরাসটির গতিবিধি সম্পর্কে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও গবেষণার জন্য দুই দেশের এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

বিশ্ববাজার স্থিতিশীল রাখতে একটি ‘উন্মুক্ত, স্থিতিশীল ও নিরাপদ’ সরবরাহ ব্যবস্থা নিশ্চিত করার প্রস্তাব জানান তিনি। জনগণের জীবিকা ও বিশ্ব অর্থনীতি প্রবৃদ্ধির স্বার্থে অর্থনৈতিক নীতিমালায় সমন্বয় প্রয়োজন বলেন তিনি।

এদিকে, গত শনিবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট মাখোঁ এবং জার্মানি, স্পেন ও সার্বিয়ার শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে পৃথকভাবে ফোনে আলাপ করেন প্রেসিডেন্ট শি। সম্প্রতি ইতালি, স্পেন ও সার্বিয়ায় জরুরি চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহ ও বিশেষজ্ঞ দল পাঠিয়েছে চীন।

সোমবার, মাখোঁর সঙ্গে ফোনে আলাপকালে শি বলেন, চীন ও ফ্রান্সের উচিৎ সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, জনস্বাস্থ্য ও বৈজ্ঞানিক গবেষণায় যৌথভাবে অংশ নেওয়া। পাশাপাশি, আফ্রিকার দেশগুলোকে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে প্রয়োজনীয় সহায়তা করা।

শি বলেন, ‘চীন ফ্রান্সের সঙ্গে যৌথ প্রতিরোধ গড়ে তুলে ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের জন্য একসঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী। বিশ্ব জনস্বাস্থ্যের ওপর এমন হুমকির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য জি টোয়েন্টি ও জাতিসংঘের কাঠামো অনুযায়ী সমন্বয় ও সহযোগিতা প্রয়োজন। উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলোকে সহযোগিতার জন্য এগিয়ে আসা প্রয়োজন।’

করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বের অর্থনৈতিক ও জনস্বাস্থ্যের ওপর হুমকি বিবেচনায় জরুরি জি টোয়েন্টি শীর্ষ সম্মেলন আহ্বানের ব্যাপারে একমত হয়েছেন মাখোঁ ও শি।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একটি জরুরি সম্মেলন আয়োজনের পরামর্শ দিয়েছে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট অফিস। সম্মেলনের মাধ্যমে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে যুক্ত করার পাশাপাশি যে সমস্ত দেশ টিকা আবিষ্কারের জন্য কাজ করছে তাদের সবার মধ্যে সমন্বয় গড়ে তোলা প্রয়োজন বলে জানান ফরাসি প্রেসিডেন্ট মাখোঁ।

করোনায় মৃতের সংখ্যায় এবার চীনকে ছাড়ালো স্পেন

করোনাভাইরাসের শিকার হয়ে মৃতের সংখ্যায় এবার ভাইরাসটির উৎপত্তিস্থল চীনকে পেছনে ফেলেছে স্পেন। গত একদিনে দেশটিতে নতুন করে ৪৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মাধ্যমে ইতালির পর এখন বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক মৃত্যুর দেশ স্পেন। বুধবার বাংলাদেশের স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্যে এই চিত্র উঠে এসেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে করোনাভাইরাস। মারাত্মক ছোঁয়াচে এই ভাইরাসের শিকার হয়ে দেশটির সরকারি হিসেবে মারা গেছে তিন হাজার ২৮১ জন। তবে এই ভাইরাসে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি হয়েছে ইতালিতে। ইউরোপের এই দেশটিতে মোট ছয় হাজার ৮২০ জনের প্রাণহানি হয়েছে।

স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বুধবার জানিয়েছে, দেশটিতে করোনাভাইরাসের শিকার হয়ে মোট তিন হাজার ৪৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার ৬১০ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে পাঁচ হাজার ৩৬৭ জন।

বিশ্বজুড়ে মহামারির আকার নিলেও করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হয়েছে। ধীরে ধীরে দেশটির বিভিন্ন শহরে আরোপিত বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া শুরু হয়েছে।

এদিকে সামনের দিনগুলোতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্পেনের শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ফার্নান্দো সিমন। করোনা মহামারিতে ভেঙে পড়া দেশটির স্বাস্থ্য খাত ভাইরাসটি মোকাবিলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। হাসপাতালের মর্গে মৃতদেহের সংকুলান না হওয়ায় মাদ্রিদের একটি স্কি মাঠকে অস্থায়ী মর্গ হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এছাড়া এই সপ্তাহের শুরুতে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তরফে জানানো হয়, অনেক বৃদ্ধাশ্রমে তল্লাশি চালাতে গিয়ে সেখানে ফেলে যাওয়া বৃদ্ধ ও অনেকের মৃতদেহ খুজেঁ পেয়েছে সেনা সদস্যরা।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri