buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

কক্সবাজারে দুই ডাক্তার সহ আরও ২৩ জন করোনায় আক্রান্ত : ৫০তম দিনে জেলায় রোগী বাড়ল ২৫২ জনে

corona-lab-cox-positive-may20.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(২০ মে) :: কক্সবাজারে করোনার ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা শুরুর পর থেকে বেড়েই চলেছে রোগীর সংখ্যা। কিছুতেই যেন লাগাম টানা যাচ্ছে না করোনা সংক্রমণের। এ ধারা টানা অব্যাহত রয়েছে গত ৫মে থেকে ।মুলত ৪র্থ ধাপের কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের কারণে জেলায় দ্রুত বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা।

আজ ২০মে বুধবার জেলায় একদিনে নতুন করে দুই মহিলা ডাক্তার,সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা,রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত আরআরআরসি স্টাফ সহ করোনা রোগী বাড়লো আরও ২৩ জন। গতকাল ১৯মে মঙ্গলবার এ সংখ্যা ছিলো একদিনে সর্বোচ্চ ২৬ জন।

এনিয়ে জেলায় ৫০তম দিনে করোনা রোগীর সংখ্যা দাড়াল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১০জন সহ মোট ২৫২ জন।আর মাত্র ১৬ দিনেই জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ১০ জন সহ ২১৪ জন।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাব সূত্রে জানা গেছে,২০মে বুধবার জেলায় শনাক্ত হয়েছে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ২ জন কর্মচারী সহ সর্বোচ্চ ২৩ করোনা রোগী। আক্রন্তদের মধ্যে চকরিয়ার- ৯ জন,সদরের ১১ জন,উখিয়ায় ২ জন এবং পেকুয়ার ১ জন রয়েছেন। এনিয়ে জেলায় ৫০তম দিনে করোনাা রোগীর সংখ্যা দাড়াল ১০ রোহিঙ্গা সহ মোট ২৫২ জন। আর প্রাণ কেড়ে নিয়েছে এক জনের। এর মধ্যে সর্বশেষ গত ১৬দিনেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন রোহিঙ্গা সহ ২১৪ জন।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অনুপম বড়ুয়া জানান,বুধবার ১৫৪ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে।এদিন মোট ২৯ জন পজিটিভ হয়েছেন।এর মধ্যে ২৩ জনই কক্সবাজার জেলার। এছাড়া লোহাগাড়ার ৫ জন এবং বান্দরবানের ১জন রয়েছে। এছাড়া ফলোআপ রিপোর্টের মধ্যে চকরিয়ার-১ জন এবং রামুর ১জন সহ মোট ৪ জন রয়েছে। বাকী ১২১ জনের নমুনায় সবারই নেগেটিভ এসেছে।

জানা গেছে, কক্সবাজার জেলায় সবচেয়ে আক্রান্ত বেশি চকরিয়া উপজেলায়। সেখানে মোট আক্রান্ত ৮৬ জন। এছাড়াও দ্বিতীয় অবস্থানে সদরে ৭৬ জন। আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে উখিয়া । এ উপজেলায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৩২ জন।এর পরে রয়েছে পেকুয়ায় ২৬ জন,মহেশখালীতে ১৩ জন,টেকনাফে ৯ জন,রামুতে ৫ জন,কুতুবদিয়ায় ১ জন।এছাড়া শরনার্থী শিবিরের রোহিঙ্গা রয়েছে ১০ জন।

স্বাস্থ্যসংশ্লিষ্টরা মনে করছেন,লকডাউন ভেঙ্গে মানুষজন অসতর্কভাবে যেখানে-সেখানে ঘুরে বেড়ানোর কারণেই আক্রান্ত‘র সংখ্যা বাড়ছে ।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri