buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের করোনা চিকিৎসায় ২০০ শয্যার(সারি) আইসোলেশন সেন্টার উদ্ধোধন

CXB-DC-speech-21.jpg

শহিদুল ইসলাম,উখিয়া(২১ মে) :: কক্সবাজারের উখিয়ায় চালু হয়েছেন দেড়শ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন সেন্টার। ২০ মে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে শুভ উদ্ধোধন করেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো:কামাল হোসেন।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্হা ইউএনএইচসিআর এর আর্থিক সহযোগীতায় ইতিমধ্যে হাসপাতালে নির্মান কাজ সম্পন্ন হয়। চিকিৎসা যন্ত্রপাতি সহ আনুষঙ্গিক সবকিছু সংযোজনের কাজ শেষ হয়েছে।

আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্হা রিলিফ ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্হাপনায় হাসপাতালের অবকাঠামো নির্মান মেডিকেল যন্ত্রপাতি সহ আনুষঙ্গিক সকল কাজ করছে দেশের এনজিও সংস্হা ব্র্যাক।

এ হাসপাতালে এক শিফটে ৫০ জন করে প্রতিদিন তিন শিফটে ১৫০জন চিকিৎসক, নার্স, বয়, আয়া, মেট্রন সহ চিকিৎসা কর্মী দায়িত্ব পালন করবে।

হাসপাতালে চিকিৎসা কর্মীদের আবাসনের জন্য উখিয়ার সমুদ্র তীরবর্তী ইনানীর একটি বড় আবাসিক হোটেল দীর্ঘ মেয়াদী চুক্তিতে ভাড়া নেওয়া হয়েছে। হাসপাতালে সার্বক্ষণিক সেবা প্রদানের জন্য তিনটি আ্যাম্বুলেন্স থাকবে। ইতিমধ্যে চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীরা হাসপাতালে চলে এসেছেন। আগামী শুক্রবার রোগি ভর্তি করা হবে।উখিয়া কলেজ সংলগ্ন এলাকায় এ হাসপাতাল স্হাপন করা হয়। এ আয়তন তিন একর।

উখিয়ায় ১৪৪ শয্যার দ্বিতীয় এসএআরআই আইটিসিটি উদ্বোধনকালে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন বলেন, “সরকারের পক্ষ থেকে ইউএনএইচসিআরকে জানাচ্ছি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা। ইউএনএইচসিআর-এর তৈরি এই স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে শরণার্থী ও স্থানীয় কোভিড-১৯ রোগীদের সেবা দেয়া হবে।”

কক্সবাজার জেলার সিভিল সার্জন ডা:মো:মাহবুর রহমান বলনে কক্সবাজারের রামু ও চকরিয়া উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫০ শয্যা করে১শ শয্যার কোভিড হাসপাতাল চালু রয়েছে। দুই হাসপাতালে স্হান সংকুলান না হলে করোনা রোগীদের উখিয়ার আইসোলেশন সেন্টারে পাঠানো হবে।

এরআগে গত ১৮ মে প্রথম এসএআরআই(সারি) আইটিসি অনলাইনে উদ্বোধন করার সময় মোঃ মাহবুব আলম তালুকদার বলেন, “এটি একটি ঐতিহাসিক মুহুর্ত। এই মানবিক কার্যক্রমের শুরু থেকেই ইউএনএইচসিআর বাকিদের জন্য পথ প্রদর্শক হিসেবে কাজ করছে।“

ইউএনএইচসিআর-এর সিনিয়র অপারেশনস ম্যানেজার হিনাকো টোকি বলেন, “এখন ক্যাম্পের ভেতরের ও বাইরের রোগীদের আইসোলেশন করে চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হবে, যেন তারা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতে পারেন। গুরুতর রোগীদের আইসোলেশন সেন্টারে রাখার কারণে তাদের পরিবার ও এলাকা কম ঝুঁকিতে থাকবে। এটি আমাদের সবার একটি সম্মিলিত প্রচেষ্টা ও অর্জন।”

এ ব্যাপারে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো:নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি স্হানীয়রা এ হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা
পাবে।

অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন ইউএনএইচসিআর কক্সবাজার অফিস প্রধান ইনাকু টুক, কক্সবাজার সিভিল সার্জন ডা :মো:মাহাবুর রহমান, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো:নিকারুজ্জামান চৌধুরী,উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য প:প: কর্মকর্তা ডা:রন্জন বড়ুয়া রাজন,উখিয়া থানার ওসি মর্জিনা আক্তার, আরআরআরসি অফিসের প্রতিনিধি, সেনাবাহিনী প্রতিনিধি প্রমুখ।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri