buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

কক্সবাজারে করোনা ভাইরাস : একদিনে ৮ রোহিঙ্গা সহ সর্বোচ্চ নতুন শনাক্ত ৩৬জন

corona-lab-cox-positive-may22.jpg

কক্সবাংলা রিপোর্ট(২২ মে) :: কক্সবাজার জেলায় থামছে না মরণব্যাধি করোনার মুহুর্মুহু আক্রমণ। শুক্রবার (২২ মে) কক্সবাজারে নতুন করে সর্বোচ্চ ৩৬ জনের শরীরে ধরা পড়েছে ভীতিকর এ ভাইরাস। এর আগে গত ১৯ মে ধরা পড়েছিল ৪ রোহিঙ্গা সহ সর্বোচ্চ ২৬ জন।এভাবে প্রতিদিনই বাড়ছে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এর ফলে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে জেলাবাসীর মাঝে।

শুক্রবার কক্সবাজার মেডিকেল কলেজে স্থাপিত করোনা ল্যাবে গত ২৪ ঘন্টায় পরীক্ষা করা ১৭৪টি নমুনার মধ্যে জেলায় ২৮টির রিপোর্ট পজেটিভ আসে।এছাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আরও ৮টি রিপোর্ট পজেটিভ আসে। এনিয়ে জেলায় ৫২তম দিনে করোনা রোগীর সংখ্যা দাড়াল ২১ রোহিঙ্গা সহ মোট ৩১৫ জন।

বিষয়টি কক্সবাংলাকে শুক্রবার বিকালে নিশ্চিত করেছেন মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অনুপম বড়ুয়া ও স্বাস্থ্য সমন্বয়কারী আরআরঅরসি‘র ডা.আবু তোহা।

ডা. অনুপম বড়ুয়া জানান, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের করোনা ল্যাবে শুক্রবার ১৭৪ জনের শরীরের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৩৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব ধরা পড়ে। এর মধ্যে জেলায় নতুন ২৮ জনের করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। বাকি ৬ জনপূর্বের আক্রান্ত (সদরের-৩ জন,চকরিয়ার-১,রামুর-১জন ও নাইক্ষ্যংছড়ির ১ জন ফলোআপ)। দ্বিতীয়বার পরীক্ষা করেও তাদের শরীরে করোনা পজিটিভ আসেন।

আক্রান্তদের মধ্যে চকরিয়ার-১৯ জন,সদরের ২ জন,পেকুয়ার ১ জন,রামুর-১ জন,মহেশখালীর ৫জন। এছাড়াে একইদিন ৮ রোহিঙ্গাও করোনা পজিটিভ আছে বলেও জানান আরআরঅরসি‘র স্বাস্থ্য সমন্বয়কারী ডা. ডা.আবু তোহা। আর কক্সবাজার জেলায় ৫২তম দিনে এই ৩৬ জনকে নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২১ রোহিঙ্গা সহ মোট ৩১৫ জন। এর মধ্যে মাত্র শেষ ১৮দিনেই জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ২১ জন সহ ২৫৯ জন।

এদিকে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন (আরআরআরসি) কার্যালয়ের প্রধান স্বাস্থ্য সমন্বয়কারী ডা.আবু তোহা এম আর এইচ ভুঁইয়া কক্সবাংলাকে জানান, রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ২৬টি পরীক্ষার মধ্যে ৮ রোহিঙ্গার করোনা শনাক্ত হয়েছে।এদের মধ্যে ৫জন পূরুষ ও ৩ জন মহিলা। আক্রান্তদের ৭ জন ক্যাম্প-১ এবং ১ জন ক্যাম্প-২৬ এর বাসীন্দা। তিনি আরও জানান,এ পর্যন্ত ২৯৬ জন রোহিঙ্গার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে এর মধ্যে ২১ জনের করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছে।আক্রান্ত সবাইকে আইসোলেশন সেন্টারে নেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, কক্সবাজার জেলায় সবচেয়ে আক্রান্ত বেশি চকরিয়া উপজেলায়। এখানে মোট আক্রান্ত ১০৫ জন। এছাড়াও দ্বিতীয় অবস্থানে সদর উপজেলা ৮৮ জন। আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে উখিয়া । এ উপজেলায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৩৭ জন।এর পরে রয়েছে পেকুয়ায় ২৯ জন,মহেশখালীতে ১৮ জন,টেকনাফে ৯ জন,রামুতে ৬ জন,কুতুবদিয়ায় ২ জন।এছাড়া শরনার্থী শিবিরের রোহিঙ্গা রয়েছে ২১ জন।এ পর্যন্ত জেলায় করোনায় মৃত্যুবরণ করেছেন ৪জন। আর রামু ও চকরিয়া আইসোলেশন হাসপাতাল থেকে করোনায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৫জন।

স্বাস্থ্যসেবা সংশ্লিষ্ট ও সচেতন ব্যক্তিদের মন্তব্য- বিধি-নিষেধ অমান্য করে এভাবে ভিড় করে কেনাকাটার জন্য মানুষের মাঝে দ্রুত করোনাভাইরাসের বিস্তার ঘটছে।কক্সবাজার শহরসহ বিভিন্ন স্থানে জামাকাপড়, জুতা ও কসমেটিকসের দোকানে মহিলা-পুরুষরা ভিড় করে ঈদের কেনাকাটা করছেন। এ কারণে জেলায় ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার আশঙ্কাই বেশি।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri