buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

পেকুয়ায় গ্লোরিয়াসের বাজিমাত, জিপিএতে শ্রেষ্টত্ব

FB_IMG_1591023783902.jpg

নাজিম উদ্দিন,পেকুয়া(১ জুন) :: পেকুয়ায় বাজিমাত করেছে গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ার। এবারে এসএসসিতে প্রতিষ্টানটি কক্সবাজার জেলার মধ্যে শিক্ষা বিস্তারে অনন্য অবস্থান ও উচ্চতর স্থানে পৌছে গেছে। এসএসসি পরীক্ষায় সদ্য ঘোষিত ফল প্রকাশে দেখা গেছে এ প্রতিষ্টান থেকে জিপিএ-৫ সহ সর্বোচ্চ মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা পেকুয়া উপজেলার মধ্যে প্রথম। গোল্ডেন জিপিএ-৫ ও এ প্লাস প্রাপ্ত শিক্ষার্থী ৩৫ জন। এরই মধ্যে গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ার থেকে গোল্ডেন জিপিএ পেয়েছেন ৯ জন।

এ ছাড়া এ প্রতিষ্টান থেকে এ প্লাস পেয়েছে ২৬ জন শিক্ষার্থী। সুত্র জানায়, পেকুয়া উপজেলায় সব কটি শিক্ষা প্রতিষ্টানে জিপিএ-৫ ও এ প্লাস পেয়েছে ৪১ জন শিক্ষার্থী। এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উপজেলার মধ্যে ৪১ জন শিক্ষার্থী এ প্লাস কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখেন। তবে এরই মধ্যে ৩০ জন শিক্ষার্থী এ প্লাস পেয়েছেন গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ার থেকে।

শুধুমাত্র গোল্ডেন জিপিএ পেয়েছে উপজেলার মধ্যে ৯ জন। সবকটি গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ারের ঝুঁলিতে। এ ছাড়া মাদ্রাসা থেকে উত্তীর্ণ ৩ জন শিক্ষার্থী গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে। এরা সবাই এডুকেশন কেয়ারের ছাত্র। গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ারের এমন বাজিমাতে পেকুয়া উপজেলায় চমকিয়ে দিয়েছে।

সুত্র জানায়, ২০১৫ সালের দিকে পেকুয়ায় এ প্রতিষ্টানটির আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। বিশ্বায়নের এ যুগে মেধাবী শিক্ষার্থী সৃষ্টির চ্যালেঞ্জ নিয়ে প্রতিষ্টানটির পত্তন হয়েছে। এরই মধ্যে সাফল্যের ব্যাপক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। এখন গ্লোরিয়াস মানে অনন্য। প্রতিষ্টানটি পেকুয়ার মধ্যে সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে। পেকুয়া ছাড়াও এর খ্যাতি ও সুনাম পার্শ্ববর্তী উপজেলাসমুহ ও কক্সবাজার জেলায়ও বিস্তৃতি লাভ করেছে। এসএসসি সদ্য প্রকাশিত ফল নিয়ে গ্লোরিয়াসের পরিচালনা পরিষদ, অভিভাবক, পেকুয়ার সচেতন মহল অত্যন্ত সন্তুষ্ট।

গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ারের শিক্ষক শওকত হোছাইন জানান, আমরা চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করছি। শিক্ষা এখন প্রতিযোগিতামুলক। শ্রেষ্টত্ব অর্জন ছাড়া পৃথিবীতে ঠিকে থাকা খুবই জটিল। শিক্ষক আবদুল হামিদ জানান, সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আজকে এ প্রতিষ্টানটি উচ্চতর অবস্থানে পৌছে গেছে। মহান কর্তার কাছে কৃতজ্ঞ। আমাদের শিক্ষার্থীরা মর্যাদা ধরে রেখেছে।

শিক্ষক মোহাম্মদ মোরাদুল কাদের মনির জানান, এক ঝাঁক তরুণ মেধাবী ও সর্বোচ্চ শিক্ষিত যুবকদের নিয়ে এ প্রতিষ্টান সুন্দর আগামীর দিকে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীরা এ প্রতিষ্টানের শিক্ষক। এদের অধ্যবসায় ও কঠোর পরিশ্রমে আজকে এ সাফল্য।

প্রতিষ্টানটির সহকারী পরিচালক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা উচ্ছাসিত। সমগ্র উপজেলার মধ্যে আমরা ৩০ টি পেয়েছি। উপজেলার বাইরেও বিভিন্ন প্রতিষ্টান থেকে আমাদের শিক্ষার্থীরা এ প্লাস পেয়েছে।

গ্লোরিয়াস এডুকেশন কেয়ারের পরিচালক মোহাম্মদ মোশারফ হোছাইন জানান, আসলে একক প্রচেষ্টায় কারও পক্ষে উচ্চতায় অধিষ্টিত হওয়া খুবই কঠিন। সবার আন্তরিক সহযোগিতা ও বুদ্ধি, পরামর্শে আমরা এমন একটি অবস্থানে এসেছি। আমার শিক্ষকমন্ডলীকে আমি কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করছি। তারা কঠোর পরিশ্রম করেছেন। শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার মনোনিবেশ করতে শিক্ষক ও অভিভাবকদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমাদের প্রতিষ্টানটি আজকে উচ্চতর অবস্থানে পৌছতে সক্ষম হয়েছে। জাতি গঠনে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। একটি কঠিন প্রয়াস ছাড়া সাফল্য আশা করা যায়না।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri