buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

সীমান্তে ১৪‘শ ফুট উচ্চতায় সঙ্ঘাত : অভিযানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের চিনুক হেলিকপ্টার পাচ্ছে ভারত

chinook1.jpg

কক্সবাংলা ডটকম(১ জুন) :: হিমালয়ের বহু উঁচুতে মে মাসের শুরুর দিকে চীন আর ভারতের সেনাদের মধ্যে বড় ধরনের হাতাহাতি হয়েছে। ১৪,০০০ ফুট উচ্চতায় দুই বাহিনীর মধ্যে এই ধরনের ঘটনা অবশ্য নতুন নয়, তবে এর পরে যেটা ঘটেছে, সেটা নিঃসন্দেহে নতুন।  কয়েক দিন পর আবারও ভারতীয় সেনাদের মুখোমুখি হয় চীন, এবার হিমালয়ের অন্য একটি সীমান্তে পয়েন্টে, আগের ঘটনার থেকে সেটার দূরত্ব এক হাজার মাইলেরও বেশি। এর পরপরই দুই দেশের সেনাবাহিনীই তাদের সমাগম বাড়িয়েছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সাবেক কর্নেল অজয় শুক্লার হিসেবে চীন পিপলস লিবারেশান আর্মির তিন ব্রিগেড সেনার সমাবেশ ঘটিয়েছে – যেখানে সেনার সংখ্যা রয়েছে কয়েক হাজার। অন্যদিকে ভারত মোতায়েন করেছে ৩,০০০ সেনা।

সীমান্ত উত্তেজনার আগেই ভারতের বিমান বাহিনীকে (আইএএফ) সিএইচ-৪৭এফ (আই) চিনুক হেভিলিফট হেলিকপ্টার সরবরাহ সম্পন্ন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের এরোস্পেস জায়ান্ট বোয়িং। আইএএফের একটি সূত্র যুক্তরাষ্ট্র থেকে কেনা ১৫টি চিনুকের শেষ ৫টি’র চালান চন্ডিগড় এয়ারফোর্স স্টেশনকে সরবরাহের কথা নিশ্চিত করেছে।

ফরেন মিলিটারি সেলস (এফএমএস) পদ্ধতিতে এসব হেলিকপ্টার কেনা হয়। ভারত ও মার্কিন সরকারের মধ্যে এ ব্যাপারে চুক্তি হয়। ২০২০ সালের মার্চের মধ্যেই চিনুকগুলো সরবরাহ করার কথা ছিলো।

বোয়িংয়ের কাছ থেকে ২২টি অ্যাপাচি ও ১৫টি চিনুক হেলিকপ্টার কিনতে ২০১৫ সালে ভারত ৩ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি করে। এর পরে আরো ১১টি অ্যাপাচি ও ৭টি চিনুক কেনা হবে বলে চুক্তিতে উল্লেখ রয়েছে। ১৫টি চিনুক হেলিকপ্টারের দাম ১.১ বিলিয়ন ডলার।

চিনুক হলো একটি অ্যাডভান্সড মাল্টি-মিশন হেলিকপ্টার। মিশন ব্যবস্থাপনার জন্য এর রয়েছে পুরোপুরি ইনটিগ্রেটেড গ্লাস ককপিট, এয়ারক্রুদের নিরাপত্তা জোরদারে ডিজিটাল ফ্লাইট কন্ট্রোল সিস্টেম, দ্রুত কার্গো উঠানামা করানোর জন্য রয়েছে অ্যাডভান্সড কার্গো হ্যান্ডলিং ক্যাপাবিলিটি।

ক্রুদের কাজের ভার কমানো ও অভিযানগত ঝুঁকি এড়াতে এসব ব্যবস্থা।

যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের ১৯টির মতো দেশ চিনুক ব্যবহার করে। বেশ কয়েক দশক ধরে এগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে।

চিনুক আসার আগ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কাজে আইএএফকে শুধু রাশিয়ার তৈরি এমআই-১৬ হেলিকপ্টারের উপর নির্ভর করতে হতো।

ভারত সরকারের চাহিদা অনুযায়ী চিনুক হেলিকপ্টারকে ২০,০০০ ফুট উচ্চতায় উড্ডয়নক্ষম করে তৈরি করা হয়। বিশ্বের অন্যান্য স্থানে চলাচলের জন্য ৫,০০০-১০,০০০ ফুট উচ্চতাই যথেষ্ঠ।

এসব হেলিকপ্টারের প্রাথমিক কাজ হবে সেনা, কামান, সরঞ্জাম, ও জ্বালানি পরিবহন।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র থেকে সংগ্রহ করা এম-৭৭৭ আল্ট্রা-লাইট কামান হিমালয়ান অঞ্চলে চীনের সঙ্গে সীমান্ত এলাকায় নিয়ে যেতে চিনুক ব্যবহার করতে চাচ্ছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

বিশেষ করে ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলে সীমান্ত সৈন্য.ভারী অস্ত্র বহন সহ সড়ক ও অবকাঠামো নির্মাণ প্রকল্পে ব্যাপকভাবে সহায়তা করতে পারবে এসব হেলিকপ্টার।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri