buy Instagram followers
kayseri escort samsun escort afyon escort manisa escort mersin escort denizli escort kibris escort rize escort sinop escort usak escort trabzon escort

করোনার রেড জোন কক্সবাজার সদরের ৪০জন সহ ২৪ ঘন্টায় ৮ উপজেলায় আক্রান্ত ৬৩

coxsbazar-medical-college-PCR-lab-29-june.jpg

কক্সবাংলা রিপোট(২৯ জুন) :: কক্সবাজার শহরে এক ধাক্কায় করোনা রোগীর সংখ্যা কয়েক দিন কিছুটা কমার পর সোমবার বেশ খানিকটা বেড়ে গেছে। জেলায় রেড জোনের মধ্যে সদরের পৌরসভাতেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক। প্রতিদিন হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।তথ্য অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত সদরে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজারেরও বেশি। গত ২৪ ঘন্টায় সদরে নতুন ৪০ জন সহ জেলার ৮ উপজেলায় ৬৩ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর ফলে ২৯জুন পর্যন্ত এনিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২ হাজার ৫৬১ জন। এরমধ্যে মারা গেছেন ৩৮ জন। এছাড়া করোনাকে জয় করে বাড়ি ফিরেছেন ৯৬০ জন।

সোমবার রাতে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অনুপম বড়ুয়া জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘন্টায় দুইটি পিসিআর ল্যাবে ৩৭৪টি নমুনা পরীক্ষা হয়। এর মধ্যে ৭০টি নমুনার ফল আসে পজিটিভ।যার মধ্যে সবকটিই নতুন নমুনা।আর জেলায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৬৩ জন।

আক্রান্তদের মধ্যে সদরের সর্বাধিক সদরের-৪০ জন,চকরিয়ার-৩ জন,রামুতে-৬ জন, টেকনাফের-৪ জন,কুতুবদিয়ার-৪ জন,মহেশখালীতে-২ জন,উখিয়ায়-২ জন,পেকুয়ার-২ জন । জেলার বাইরে বান্দরবানের ৬ জন এবং সাতকানিয়ার-১ জন নতুন পজিটিভ অছেন। বাকী ৩০৪টি নমুনা নেগেটিভ আসে।

এনিয়ে জেলায় ৮৯ তম দিনে করোনা রোগীর সংখ্যা দাড়াল মোট ২ হাজার ৫৬১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৯৬০ জন।আর মারা গেছেন ৫ রোহিঙ্গা সহ ৩৮ জন। এছাড়া ৫০ রোহিঙ্গা করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে,২৯জুন পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনার হটস্পট সদর উপজেলায় আক্রান্ত এবং মৃত্যূ সবচেয়ে বেশি। এখানে মোট আক্রান্ত‘র সংখ্যা ১১৭৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২৮৬ জন। এছাড়াও দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা চকরিয়া উপজেলায় ৩২২ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২০৫ জন। আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে উখিয়া।এ উপজেলায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৩৩৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১১৭জন।

এর পরে রয়েছে টেকনাফে পর্যন্ত আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ২৩০ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১২০ জন,রামুতে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ২১৩ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৪ জন,পেকুয়ায় পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১০২ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৮১জন,মহেশখালীতে এ পর্যন্ত আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১২৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৬৯ জন এবং কুতুবদিয়ায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৫৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৮ জন।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে আরও জানা গেছে, ২৮ জুন রাত ৯টা পর্যন্ত গত তিন মাসে জেলায় করোনার আইসোলেশনে থাকা ১৫০২ জনের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯৬০ জন। এখন আইসোলেশনে আছেন ৫৪২ জন। এর মধ্যে হাসপাতালের আইসোলেশনে আছেন ১৬৮ জন এবং হোম কোয়ারেন্টিনে অছেন ৩৭৪ জন।

২৯ জুন পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় এ পর্যন্ত করোনা কেড়ে নিয়েছে ৩৮ জনের প্রাণ।এর মধ্যে সদরে ১৯ জন,চকরিয়ায় ৬জন,উখিয়ায়-৬ জন(রোহিঙ্গা-৫ ও স্থানীয়-১),টেকনাফে-৪ জন,মহেশখালীর-১জন,কুতুবদিয়ায়-১জন, রামুতে ১ জন এবং পেকুয়ায় এখনো কেউ মারা যায়নি।

কক্সবাজারস্থ শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন (আরআরআরসি) কার্যালয়ের প্রধান স্বাস্থ্য সমন্বয়কারী ডা.আবু তোহা জানিয়েছেন,এ পর্যন্ত ৫০ রোহিঙ্গা করোনা পজিটিভ হয়েছেন এবং ৪ জন সুস্থ হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ৫জন। আর রোহিঙ্গা আইসোলেশন ইউনিটে ৩৬ জন ভর্তি রয়েছেন।

Share this post

PinIt
izmir escort bursa escort Escort Bayan
scroll to top
en English Version bn Bangla Version
error: কপি করা নিষেধ !!
bahis siteleri